BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘খবর জোগাড়ের জন‌্য যৌন সম্পর্কে জড়ান মহিলারা’, দাবি টেলিভিশন সঞ্চালকের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: December 14, 2019 2:01 pm|    Updated: December 14, 2019 2:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০১৭ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন‌্যা ইভাঙ্কাকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব‌্য করেছিলেন ফক্স নিউজের এই সঞ্চালক জেসি ওয়াটার্স। সে বার বিষয়টি নিয়ে বেশ জলঘোলা হয়েছিল। সেই জেসি ফের বিতর্কে জড়ালেন। তবে এবার মহিলাদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব‌্য করে।
কী বলেছেন জেসি?

এই টেলি-সঞ্চালকের দাবি, হলিউড তো বটেই। বাস্তব জীবনেও খবরের সন্ধানে (পড়ুন ‘এক্সক্লুসিভ’ ‘স্টোরি’-র সন্ধানে ) প্রায়শই যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন মহিলা সাংবাদিকরা। ওয়াটার্সের ভাষায়, ‘হামেশাই এমন হয়’। ফক্স নিউজের টক শো ‘দ‌্য ফাইভ’-এ বুধবার এই চাঞ্চল‌্যকর মন্তব‌্য করেন জেসি। আর স্বাভাবিকভাবেই তাঁর সেই মন্তব‌্য সর্বসমক্ষে আসার পরই ধেয়ে এসেছে সমালোচনার ঝড়। অনেকেই এই ধরনের মন্তব‌্যকে ‘অসম্মানজনক’ এবং ‘অবমাননাকর’ বলে অভিহিত করেছেন।

[ আরও পড়ুন: ট্রাম্পের গদি টলমল! অপসারণ নিয়ে ভোট প্রস্তুতি শুরু ]

তবে শুধু এই মন্তব‌্য করেই ক্ষান্ত হননি জেসি। নিজের বক্তব্যের পক্ষে উদাহরণও টেনেছেন। উল্লেখ করেছেন আলি ওয়াটকিন্স নামে এক সাংবাদিকের কথা। জেসি বলেন, আলি ওয়াটকিন্স নামে এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল যে তিনি ‘স্কুপ’-এর সন্ধান পেতে তাঁরই এক ‘সোর্স’-এর শয‌্যাসঙ্গিনী হয়েছিলেন। শুধু তাই নয়। দীর্ঘ চার বছর ধরে সেই ‘সূত্র’-র সঙ্গে তাঁর যৌন সম্পর্ক ছিল, যাকে কাজে লাগিয়ে আলি তাঁর কর্মজীবনে প্রচুর ‘এক্সক্লুসিভ স্টোরি’ করেছিলেন। তবে ‘মহিলা সাংবাদিকরা খবরের সন্ধানে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন’- জেসি এই মন্তব‌্য করার পর টুইট করে তার প্রবল বিরোধিতা করেন ‘সিএনএন’-এর সঞ্চালক এস ই কাপ। তিনি লেখেন, ‘এই ধরনের মন্তব‌্য ভিত্তিহীন এবং অত‌্যন্ত কুরুচিপূর্ণ। ফক্স নিউজের উচিত এর প্রতিবাদ করা এবং নিজেদের চ‌্যানেলের মহিলা সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়ানো।’

প্রসঙ্গত, হলিউডের বিখ‌্যাত পরিচালক ক্লিন্ট ইস্টউডের আসন্ন ছবি ‘রিচার্ড জুয়েল’ ছবিতে দেখানো হয়েছে, ‘স্টোরি’র খোঁজে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হচ্ছেন এক সাংবাদিক। এ নিয়ে বিতর্কও ছড়িয়েছে। ওয়াটার্সের মন্তব‌্য সেই বিতর্ককেই আরও উসকে দিল।

[ আরও পড়ুন: CAB নিয়ে অশান্ত অসম, কড়া নজর রাখছে রাষ্ট্রসংঘ ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement