BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

শ্রীলঙ্কায় মুসলিম ভোটার ভরতি ১০০টি বাসে আগুন দুষ্কৃতীদের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 16, 2019 2:17 pm|    Updated: November 16, 2019 8:29 pm

Gunmen Fire On Buses Carrying Sri Lanka Voters, No Casualties

ফাইল ফোটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রীলঙ্কায় রাষ্ট্রপতি নির্বাচন চলছে। তাতে ভোট দেওয়ার জন্য ১০০টি বাসে করে মুসলিম ভোটারদের ভোটগ্রহণ কেন্দ্র নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। রাস্তায় বাসগুলিতে আগুন ধরিয়ে দিল অজ্ঞাত পরিচয়ের একদল স্বশস্ত্র দুষ্কৃতী। তবে এই হামলার ফলে এখনও পর্যন্ত কারও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। শনিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো থেকে ২৪০ কিলোমিটার দূরে, উত্তর-পশ্চিম প্রান্তে অবস্থিত তান্তিরিমালোতে। পুলিশ ও অন্য তদন্তকারী সংস্থাগুলি তদন্ত শুরু করলেও এখনও কেউ গ্রেপ্তার হয়নি। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে প্রবল উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: ব্রিটেনের নির্বাচনে ভাগ্যপরীক্ষা বাঙালির, কনজারভেটিভদের হয়ে লড়বেন সঞ্জয় সেন]

এপ্রসঙ্গে তান্তিরিমালোর এক পুলিশ আধিকারিক জানান, শ্রীলঙ্কার উপকূলবর্তী শহর পুট্টালমে বসবাসকারী মুসলিম ভোটারদের ভোট দিতে হয় পার্শ্ববর্তী জেলা মানারে। শনিবার সকালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট দেওয়ানোর জন্য তাঁদের মোট ১০০টি বাস করে সেখানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। আচমকা তান্তিরিমালো এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করা হয়। ওই বাসগুলিকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে থাকে একদল দুষ্কৃতী। পাথরও ছুঁড়তে থাকে। ভয়ে বাসগুলি থেকে নেমে পড়েন সমস্ত যাত্রী। এরপর দুষ্কৃতীরা বাসগুলিতে আগুন ধরিয়ে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও অন্য নিরাপত্তা সংস্থার কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ভোটারদের অন্য গাড়িতে করে ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে এখনও পর্যন্ত হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

[আরও পড়ুন: স্বামীরা বন্দি, চিনা পুরুষদের শয্যাসঙ্গিনী হতে বাধ্য করা হচ্ছে মুসলিম মহিলাদের]

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শ্রীলঙ্কার তামিল অধ্যুষিত জাফনার উত্তর পেনিনসুলা এলাকায় পুলিশ ও সেনার মধ্যে কিছু বিষয়কে কেন্দ্র করে ঝামেলা চলছে। পাশাপাশি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য সেনার তরফে বিভিন্ন রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ফলে ওই এলাকায় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। পুলিশের অভিযোগ, সেনা ইচ্ছা করেই বিভিন্ন জায়গায় রাস্তা অবরোধ করেছে যাতে ভোটাররা নির্বাচনে অংশ না নিতে পারে। সেই কারণেই এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে মোট ৩৫ জন প্রার্থী লড়াই করছেন। যদিও মূল লড়াইটা হচ্ছে আবাসন মন্ত্রী সাজিথ প্রেমাদাসা ও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মাহিন্দা রাজাপক্ষের ভাই গোটাবায়া রাজাপক্ষের মধ্যে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে