১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকদিন আগেই বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলাবল বলেছিলেন, ‘আগে আমরা কাশ্মীর দখলের কথা ভাবতাম। কিন্তু, এখন মুজফ্ফরাবাদ বাঁচানোর কথা ভাবি।’ এই মন্তব্যের জন্য সেসময় পাকিস্তানের মধ্যেই তাঁর বিরোধিতা হচ্ছিল। কিন্তু, বিষয়টা যে কতটা বাস্তব তা শুক্রবার হাড়ে হাড়ে টের পেলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

[আরও পড়ুন: সৌদির তেল কারখানায় ড্রোন হামলার দায় স্বীকার ইয়েমেনের হাউতি জঙ্গিগোষ্ঠীর]

পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মুজফ্ফরাবাদে সভা করতে গিয়ে কাশ্মীর নিয়ে সহানুভূতি আদায়ের চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কাশ্মীরিদের হাতে বন্দুক তুলে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ করে বলেছিলেন, ‘মানবিকতা থাকলে এই কাজ মোদি করতে পারতেন না। একমাত্র কাপুরুষরাই এই কাজ করতে পারে। ভারত সরকারের জন্য গত ৪০ দিন ধরে থমকে রয়েছে কাশ্মীরের মানুষের জীবন।’ ভারত ও মোদির বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে বাহবা কুড়নোর পরিকল্পনা নিয়েছিলেন ইমরান। কিন্তু তার বদলে শুনতে হল, ‘গো নিয়াজি গো ব্যাক’ স্লোগান। এমনকী তিনি যখন বক্তব্য রাখছেন তখন স্লোগান উঠল, ‘কাশ্মীর বানেগা হিন্দুস্তান।’

[আরও পড়ুন: পাকিস্তান সীমান্তে খতম লাদেনের পুত্র হামজা, ৯/১১-এর বর্ষপূর্তিতে জানালেন ট্রাম্প]

একজন নেটিজেন ওই সময়ের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতেই ভাইরাল হয়েছে সেটি। ইমরান খানকে কটাক্ষ করে নেটিজেনরা বলছেন, ৩৭০ ধারা বাতিল নিয়ে উত্তেজনা তৈরির বদলে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বাসিন্দাদের মন বোঝার চেষ্টা করা উচিত ছিল তাঁর। কারণ, যা পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে তাতে পাক অধিকৃত কাশ্মীর না ওদের হাতছাড়া হয়ে যায়। কেউ লিখেছেন, দীর্ঘদিন ধরেই পাকিস্তানের কবল থেকে মুক্ত চাইছে অধিকৃত কাশ্মীরের মানুষ। এই স্লোগান তারই প্রতিফলন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং