৪ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অবৈধ অভিবাসীদের তিনি কিছুতেই বরদাস্ত করবেন না। একথা আর কারও অজানা নয়। মঙ্গলবার আইন আটঁসাটঁ করেছেন গ্রিন কার্ড আবেদনকারীদের জন্যও। এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তির ভারত আর চিনের দিকে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জানালেন, ‘উন্নয়নশীল দেশে’র পর্যায়ে না পড়লেও বিশ্ব বাণিজ্য সংগঠনের (ডব্লুটিও) আওতায় থাকার ‘সুযোগসুবিধা নিয়ে চলেছে’ ভারত ও চিন। এটা আর বেশিদিন চলতে দেওয়া যাবে না বলে জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

[আরও পড়ুন: মার্কিন বাহিনীর ধাঁচে ভারতেও ‘চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ’, প্রতিরক্ষায় ঐতিহাসিক ঘোষণা]

গত জুলাইয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ডব্লুটিও-র কাছে জানতে চেয়েছিলেন, কীসের ভিত্তিতে তারা সদস্য দেশগুলির কাউকে কাউকে ‘উন্নয়নশীল দেশ’-এর তালিকাভুক্ত করে। যে সমস্ত দেশের অবস্থা আগে খারাপ ছিল, বর্তমানে তুলনায় আর্থিক অবস্থা ভাল, সেগুলো কী করে এখনও উন্নয়নশীল দেশের তকমা পায়? মঙ্গলবার পেনসিলভানিয়ায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একটি সমাবেশে বলেন, “এশিয়ার অর্থনীতিতে দু’টি বৃহৎ দেশ ভারত ও চিন। কিন্তু সত্যি বলতে, দু’টি দেশ আর মোটেই উন্নয়নশীল দেশের পর্যায়ে নেই। তাই ভারত ও চিন আর ডব্লুটিও-র দেওয়া তকমার সুযোগসুবিধা নিতে পারে না। এবার এগুলো নিয়ে চিন্তা করা উচিত।” জেনেভার ডব্লুটিও বিভিন্ন দেশের মধ্যে ব্যবসা, বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণ করে। ভারত ও চিনে ঢোকা মার্কিন পণ্যাদির উপর দুই দেশই যে প্রচুর পরিমাণে শুল্ক চাপায়, বরাবরই তার বিরোধিতা করে এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ভারত ট্রাম্পের কাছ থেকে ‘শুল্ক চাপানোর রাজা’ খেতাবও পেয়েছে। আর চিনের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই বাণিজ্য যুদ্ধে নেমে পড়েছে ওয়াশিংটন।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের লক্ষ্য আদতে ভারত, চিন ও তুরস্কের মতো কয়েকটি দেশ। যাদের অর্থনীতি আর উন্নয়নশীল পর্যায়ে নেই বলে মনে করেন ট্রাম্প। সে ক্ষেত্রে ডব্লুটিও কী ভাবে ওই দেশগুলিকে এখনও ‘উন্নয়নশীল দেশ’-এর তালিকায় রেখেছে, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। আসলে ট্রাম্পের উষ্মার কারণ, ডব্লুটিও-র দেওয়া ‘উন্নয়নশীল দেশ’-এর তকমার জন্য ভারত, চিন ও তুরস্কের মতো দেশগুলি সেই সব দেশে ঢোকা মার্কিন পণ্যাদির উপর অবাধে শুল্ক চাপিয়ে চলেছে। ফলে, সে দেশে মার্কিন ব্যবসায়ীদের ব্যবসা করতে অসুবিধা হচ্ছে। যে দেশগুলি ডব্লুটিও-র দেওয়া তকমার সুযোগসুবিধা নিয়ে যাচ্ছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাদের বিরুদ্ধে কঠোরতম ব্যবস্থাও নিতে আরজি জানিয়েছে মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধিদের কাছে।

[আরও পড়ুন: পাক-অধিকৃত কাশ্মীরে হামলার ছক ভারতীয় সেনার! যুদ্ধের জুজু দেখছেন ইমরান]

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং