১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘আমরা কোথায় যাব?’, প্রশ্ন করোনা সন্দেহে মিলানে আটক ৩০০ ভারতীয়র

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 11, 2020 4:52 pm|    Updated: March 12, 2020 1:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইটালির বিমানবন্দরে আটকে প্রায় ৩০০ জন ভারতীয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষার সার্টিফিকেট ছাড়া দেশের বিমানে উঠতে পারবেন না তাঁরা। অথচ সেই সার্টিফিকেট জোগার করা সহজ কাজ নয়। ফলে আতান্তরে পড়েছেন শ’তিনেক ভারতীয়। ইতিমধ্যে একটি ভিডিওতে তাঁদের অসহায়তার কথা জানিয়েছেন। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতেও পোস্ট করা হয়েছে।

കൊറോണ ഇറ്റലി

ദയവായി ഷെയർ ചെയ്ത് സഹായിക്കണം…ഉത്തിരവാദപെട്ടവർക്ക് ഇടപെടാൻ കഴിയട്ടെ…എൻറെ ഒരു സുഹൃത്തിൻറെ സുഹൃത്തായ ഹിമ എന്ന് പറഞ്ഞ കുട്ടിയുടെ നേതൃത്വത്തിലുള്ള സംഘമാണ് ഇത്…..ദയവായി ഷെയര് ചെയ്യുക

Posted by Hari Pathanapuram on Tuesday, 10 March 2020

চিনের পর ইটালিতেই মহামারির আকার নিয়েছে করোনা। মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সে দেশে মৃত্যু হয়েছে ১৬৮ জনের। যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। চিনের পর ভূমধ্যসাগর তীরবর্তী এই দেশে ভয়াবহ আকার নিয়েছে করোনা। যার জেরে সেখানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৩৮। আক্রান্ত অন্তত ১০ হাজার জন। সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের নাগরিকদের ছয় কোটি মানুষকে কার্যত ঘরবন্দি করে রাখা হয়েছে। 

[আরও পড়ুন : করোনায় ইটালিতে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ১৬৮, ঘরবন্দি ছ’কোটি নাগরিক]

তাই ইটালি এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে থাকা ভারতীয়দের মেডিক্যাল সার্টিফিকেট ছাড়া দেশের বিমানে উঠতে দিতে রাজি নয় প্রশাসন। এ বিষয় ভারত সরকারের তরফে নির্দেশিকাও জারি করা হয়েছে। ৩০০ জন ভারতীয় মিলান বিমানবন্দরে পৌঁছনোর পর জানতে পারেন, মেডিক্যাল সার্টিফিকেট ছাড়া বিমানে উঠতে দেওয়া যাবে না। কয়েকজন কোনওরকমে কোচিগামী বিমানে উঠে পড়লেও অধিকাংশই মিলান বিমানবন্দরে আটকে রয়েছেন।

[আরও পড়ুন : করোনার বিরুদ্ধে জোরদার লড়াই চিনের, ইউহান পরিদর্শন করলেন জিনপিং]

কিন্তু কেন মিলছে না মেডিক্যাল সার্টিফিকেটে? মিলানে আটকে থাকা ভারতীয়রা জানাচ্ছেন, মেডিক্যাল সার্টিফিকেট নিতে হলে তাঁদের করোনা আক্রান্ত এলাকায় যেতে হবে। সেই ঝুঁকি তাঁরা নিতে পারবেন না। অন্যদিকে, করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় হাসপাতালগুলি ভর্তি হয়ে গিয়েছে। সেখানে তাঁদের পরীক্ষা করা কঠিন। ফলে ক্ষুব্ধ প্রবাসী নাগরিকদের কথায়, আমরা প্রবাসীরা যাব কোথায়? বিমানে ওঠার আগে আমরা জানতে পারি মেডিক্যাল সার্টিফিকেট ছাড়া দেশের বিমানে উঠতে পারব না। তাহলে আমরা কোথায় যাব? একইসঙ্গে তাঁদের দাবি, আমরা তো আর পালিয়ে যাচ্ছি না। দেশে ফেরার পর আমাদের ১৪ দিন কোয়ারেনন্টাইন করে রাখা হোক। এরপরই ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে তাঁরা বলেন, “দেশে যখন বন্যা হয়, শুধুমাত্র তখনই কি আমাদের দরকার পড়ে?

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement