BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার বিরুদ্ধে জোরদার লড়াই চিনের, ইউহান পরিদর্শন করলেন জিনপিং

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: March 11, 2020 10:52 am|    Updated: March 12, 2020 9:29 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক তৈরি করেছে করোনা ভাইরাস। এই মারণ জীবাণুর কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৪ হাজার মানুষ। প্রায় ১০০টি দেশে সব মিলিয়ে আক্রান্ত ১ লক্ষেরও বেশি। এহেন পরিস্থিতিতে এই রোগের উৎসস্থল ইউহান শহর পরিদর্শন করলেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। 

[আরও পড়ুন: আফগানিস্তান ছাড়ছে মার্কিন সেনা, ১৫০০ তালিবান জঙ্গিকে মুক্তি দিলেন ঘানি]

মঙ্গলবার করোনা আক্রান্ত ১৭ জনের মৃত্যু হয়ছে চিনে। সে দেশে মৃতের সংখ্যা বেঁড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ১৩৬। আক্রান্ত প্রায় ৮০ হাজার ৭৫৪ জন মানুষ। এহেন পরিস্থিতিতে এদিনই প্রথমবার সংক্রমণের কেন্দ্র হুবেই প্রদেশের ইউহান শহর পরিদর্শন করেন শি জিনপিং। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, ইউহান সফরে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ছিলেন শাসকদল সিপিসি’র জেনারেল সেক্রেটারি-সহ একাধিক শীর্ষকর্তা। সংক্রমণ রুখতে কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, সে সব নিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন প্রেসিডেন্ট জিনপিং। শুধু তাই নয়, এই কঠিন সময়ের মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগ, সেনাবাহিনী, পুলিশ এবং স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদও জানান তিনি।       

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে গত জানুয়ারি মাস থেকেই অবরুদ্ধ ইউহান শহর। হুবেই প্রদেশের বাইরে তো নয়ই, এমনকী প্রদেশের মধ্যেও যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। এরই মধ্যে এদিন আশার আলো দেখিয়ে প্রশাসনের কর্তারা জানিয়েছেন, ওই যাতায়াতের নিষেধাজ্ঞা শীঘ্রই শিথিল করা হবে।  তাৎপর্যপূর্ণভাবে, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে দ্রুত ছড়ালেও চিনে গতি শিথিল হয়েছে করোনা ভাইরাসের।  

উল্লেখ্য, গোটা বিশ্ব এখন করোনা আতঙ্কে ভুগছে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে এক লক্ষেরও উপর মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মৃতের সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিন হাজার। চিনের অবস্থা সবচেয়ে ভয়াবহ। তারপরই তালিকায় রয়েছে ইরান ও ইটালির নাম। সেখানেও উত্তরোত্তর আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ব্রিটেনেও ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। এই দেশে ৬ জন করোনার বলি হয়েছেন। আক্রান্ত প্রায় ৩৭০ জন।

[আরও পড়ুন: করোনার থাবা ব্রিটিশ পার্লামেন্টে, আক্রান্ত ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী নেডাইন ডরিস]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement