২ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হঠাৎই পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে সাধারণ নির্বাচনের ডাক দিলেন ডাক দিলেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। ভোটে যাওয়ার আগে ছয় সপ্তাহ ধরে নির্বাচনী প্রচার চালাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: বিদায়বেলায় কাঁদলেন জ্যাক মা, আলিবাবার নয়া প্রধান ড্যানিয়েল ঝাং]

বুধবার গভর্নর জেনারেল জুলি প্যায়েতের সঙ্গে দেখা করে তাঁর শুভেচ্ছা গ্রহণ করেন ট্রুডো। রাজধানী অটোয়ায় গভর্নর জেনারেলের বাসভবনের বাইরে সাংবাদিকদের ট্রুডো জানান, ২১ অক্টোবর কানাডায় সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গত চার বছরে আমরা অনেক কাজ করেছি, মানুষের কাছে আমরা সরকার গঠনের জন্য ইতিবাচক বার্তা নিয়ে যেতে চাই।’ তিনি জানান, পূর্বতন কনজারভেটিভ সরকারের সংকোচন ও ছাঁটাইয়ের ব্যর্থ নীতিতে ফিরতে চান কি না, তা এবার ঠিক করবেন কানাডার জনগণ।

কানাডার সংবাদমাদ্যমের মতে, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে তাঁর উন্নয়নমূলক নীতির জন্য যতই প্রশংসিত হোন না কেন, নিজের দেশে একাধিক কেলেঙ্কারির জেরে ট্রুডোর ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে আসন্ন নির্বাচনে মসনদ দখলে রাখতে পারবেন কি না ট্রুডো, তা নিয়ে দলের অন্দরেই সন্দেহ রয়েছে। এদিকে, নির্বাচনের প্রচারের জন্য আর মাত্রা ছয় সপ্তাহের সময় আছে। তিনটি প্রধান দলের মধ্যে মূলত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে ট্রুডোর নেতৃত্বাধীন লিবারেল পার্টি ও কনজারভেটিভ পার্টির মধ্যে। তার মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হবেন ৪০ বছর বয়সী অ্যান্ড্রু শির।

২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে কনজারভেটিভ পার্টির ১০ বছরের শাসনের অবসান হয়েছিল ট্রুডোর বিরাট জয়ের মাধ্যমে। সে সময় হাউস অফ কমন্সের ৩৩৮ আসনের মধ্যে ট্রুডোর নেতৃত্বে তার দল লিবারেল পার্টি ১৮৪টি আসনে জয় পেয়েছিল। তরুণ ভোটারদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করায় এ জয় তিনি ছিনিয়ে আনতে পেরেছিলেন বলে মনে করা হয়। সেই জনপ্রিয়তায় আস্থা রেখেই ফের নির্বাচনে যাওয়ার ঝুঁকি নিয়েছেন ট্রুডো বলেই মনে করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: এক লিটার দুধের দাম ১৪০ টাকা! বেজায় বিপাকে পাকিস্তানের জনতা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং