২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শিখ তীর্থযাত্রীদের কথা মাথায় রেখে কর্তারপুর করিডর তৈরিতে সায় দিয়েছিল ভারত। যাতে পাকিস্তানের নারওয়াল জেলার কর্তারপুরে গুরুদ্বার বাবা সাহিবে সহজে যেতে পারেন তাঁরা। কারণ, সেখানেই জীবনের শেষ কয়েকটা বছর কাটিয়েছিলেন শিখ ধর্মের প্রবর্তক গুরু নানক দেব। যা শিখদের কাছে অত‌্যন্ত পবিত্র তীর্থক্ষেত্রে।

তবে নয়াদিল্লি অবশ‌্য আশঙ্কা করেছিল, এই সুযোগ পাকিস্তান হাতছাড়া করবে না। নানাভাবে বিচ্ছিন্নতাবাদের প্রচার ও প্রসারের চেষ্টা করবে। বিশেষ করে খালিস্তানি বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলনে ফের ইন্ধন দেওয়ার চেষ্টা করবে। সেই আশঙ্কা অবশেষে সত্যি প্রমাণিত হল। গোয়েন্দা সূত্রে খবর, কর্তারপুর গুরুদ্বারের খুব কাছেই প্রচুর পোস্টার লাগিয়েছে ইসলামাবাদ। তাতে ‘কাশ্মীর ইজ পাকিস্তান’, ‘প্রাইড অফ নেশন…পাকিস্তান আর্মড ফোর্সেস’-এর মতো নানা উসকানিমূলক স্লোগান লেখা রয়েছে। কূটনৈতিক স্তরে ভারত এখনই কিছু না বললেও আপাতত পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছেন গোয়েন্দারা।

বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, শুধু কর্তারপুর গুরুদ্বার নয়, এই ধরনের পোস্টার লাগানো হয়েছে কর্তারপুর করিডরের খুব কাছে পাকিস্তানের এলাকাতে ও ওয়াঘা সীমান্তেও। সূত্রের খবর, পোস্টারের একদম উপরে লেখা রয়েছে, ‘প্রাইড অফ নেশন…পাকিস্তান আর্মড ফোর্সেস’। মাঝে আকাশযুদ্ধের পর পাক সেনার হাতে আটক হওয়া ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের ছবি। একদম নিচে লেখা, ‘কাশ্মীর ইজ পাকিস্তান’। উল্লেখ‌্য, ফেব্রুয়ারিতে বালাকোটে হামলার পর পাকিস্তান নানাভাবে অভিনন্দনের ঘটনা নিয়ে নয়াদিল্লিকে ব‌্যঙ্গ করার চেষ্টা করছে।

এতেই শেষ নয়, শিখ তীর্থযাত্রীদের ‘লাল কার্পেট’ অভ‌্যর্থনা জানিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে মন বিষিয়ে দেওয়ার চেষ্টাও চলছে সমানতালে। কর্তারপুর থেকে ফেরা কয়েকজন তীর্থযাত্রী বলে ফেলেছেন, “পাকিস্তানের আধিকারিকরা খুবই শ্রদ্ধাশীল। সৌজন‌্য অতুলনীয়। করিডরের কাছে জিরো লাইন থেকে আমাদের খুব ভাল গাড়ি করে গুরুদ্বারে পৌঁছে দেওয়া হয়। বরং ভারতীয় আধিকারিকদের ব‌্যবহার ছিল অত‌্যন্ত রূঢ়। ওরা ভদ্রতা জানে না।” গত ৯ নভেম্বর করিডরের ভারতীয় দিকের রাস্তা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেদিনই কর্তারপুর সাহিব দর্শন করেন মোট ৫৬২ জন তীর্থযাত্রী। ১২ নভেম্বর গুরু নানকের ৫৫০তম জন্মবার্ষিকীতে গিয়েছিলেন ৫৪৬ জন। গত ন’দিনে মোট ২,৬৬৬ জন তীর্থযাত্রী এখনও পর্যন্ত কর্তারপুর সাহিবে গিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: আওতায় নয়াদিল্লি, যুদ্ধের ডঙ্কা বাজিয়ে আণবিক মিসাইল ছুঁড়ল পাকিস্তান]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং