BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  রবিবার ২৯ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘পাক সেনায় বিদ্রোহের বীজ রোপণ করছেন শিয়াল নওয়াজ শরিফ’, তীব্র আক্রমণ ইমরানের

Published by: Biswadip Dey |    Posted: November 7, 2020 6:28 pm|    Updated: November 7, 2020 6:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বর্তমান ও প্রাক্তন দুই পাক প্রধানমন্ত্রীর বিবাদে সরগরম পাকিস্তানের (Pakistan) জাতীয় রাজনীতি। এবার পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে (Nawaz Sharif) ‘শিয়াল’ বলে ভর্ৎসনা করলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান (Imran Khan)। শনিবার তিনি বেনজির ভাষায় আক্রমণ করে বলেন, লন্ডনে শিয়ালের মতো বসে থেকে পাক সেনার মধ্যে ভাঙন ধরাতে চেষ্টা করছেন বর্ষীয়ান নওয়াজ।

৭০ বছরের নওয়াজ শরিফ দেশের রাজনীতিতে সেনার জড়িত থাকার অভিযোগ করেছেন। পাশাপাশি দেশের সেনাবাহিনী ও আইএসআই নেতৃত্ব— সবেতেই পরিবর্তনের ডাক দিয়েছেন তিনি। এই প্রসঙ্গ তুলেই এদিন তাঁকে আক্রমণ করলেন ইমরান। প্রসঙ্গত, গত মাসেই শরিফ সরাসরি পাক সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজোয়া এবং আইএসআই প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফৈজ হামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন ২০১৮ সালে পাকিস্তানের নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার। গত ১৬ অক্টোবর বিরোধীদের এক ভার্চুয়াল সভায় এমন মন্তব্য করেন শরিফ। এর আগেও বিরোধীরা ইমরানের জয়ের পিছনে সেনার সাহায্যের ছায়া থাকার অভিযোগ তুলেছে।

[আরও পড়ুন: ‘প্রথম দিন থেকেই করোনা মোকাবিলা’, নিশ্চিত জয়ের মুখে দাঁড়িয়ে বার্তা বিডেনের]

এদিন সেই প্রসঙ্গ তুলে ইমরানের অভিযোগ, ‘‘প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী চেষ্টা করছেন রাজনীতিতে হস্তক্ষেপের অভিযোগ তুলে পাক সেনার মধ্যে বিদ্রোহের পরিবেশ তৈরি করতে। সেই সঙ্গে তিনি সেনা ও আইএসআইয়ের নেতৃত্ব বদলেরও ডাক দিয়েছেন।’’ ২০১৮ সালে তাঁর জয়ের পিছনে পাক সেনার কোনও অবদান ছিল না বলেও জোরের সঙ্গে দাবি করেন ইমরান।

ইমরানের আরও অভিযোগ, শরিফ অসুস্থতার বাহানায় দেশ থেকে পালিয়ে গিয়েছেন। তিনি দেশের সম্পদ লুট করে ধনী হয়েছেন বলেও কটাক্ষ করেন তিনি। প্রসঙ্গত, এর আগেও শরিফের ওই দিনের বক্তব্যকে আক্রমণ করতে দেখা গিয়েছিল পাক প্রধানমন্ত্রীকে। তিনি বলেছিলেন, ভারতের ইশারায় পাক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে এমন মন্তব্য করছেন শরিফ। নওয়াজকে ভারত মদত দিচ্ছে, এমন অভিযোগও ছিল ইমরানের।

[আরও পড়ুন: ভিয়েনায় জেহাদি হামলার জের, মসজিদ বন্ধ করছে অস্ট্রিয়ার সরকার]

এর আগে গত আগস্টেই নওয়াজ শরিফকে ‘পলাতক’ ঘোষণা করেছিল পাকিস্তান।  চিকিৎসার জন্য বিদেশ গিয়ে নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও দেশে না ফেরায় তাঁকে ‘পলাতক’ ঘোষণা করা হয়। তাঁকে দেশে ফেরানোর জন্য ব্রিটেনের কাছে আবেদনও করা হয়েছে। তারপরই অক্টোবরে বিরোধীদের সভায় আক্রমণাত্মক মেজাজে দেখা যায় নওয়াজকে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement