BREAKING NEWS

২ মাঘ  ১৪২৭  শনিবার ১৬ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মুখ থুবড়ে পড়ল গবেষণা! ৪৮ দিনের মধ্যে দ্বিতীয়বার করোনা আক্রান্ত মার্কিন যুবক

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 14, 2020 11:51 am|    Updated: October 14, 2020 12:24 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সব হিসেব নিকেশ গুলিয়ে দিচ্ছে করোনা! একদল গবেষক দাবি করেছিলেন, একাবর করোনা আক্রান্ত হলে দ্বিতীয়বার সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা কম। কিছুদিনের মধ্যেই সেই দাবি উড়িয়ে আরেকদল দাবি করেছিলেন, শরীরে তৈরি হওয়া অ্যান্টিবডি তিনমাস পর্যন্ত সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে পারে। কিন্তু সেই হিসেবেও ওলটপালট করে দিল এই ভাইরাস। সুস্থ হয়ে ওটার মাত্র ৪৮ দিনের মধ্যে ফের আক্রান্ত হলেন এক যুবক। এমনই অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটেছে আমেরিকার নেভেদায়।

২৫ বছর বয়সী ওই যুবক আমেরিকার নেভেদা রাজ্যের ওয়াশো কাউন্টটিতে থাকেন। এপ্রিলের মাঝামাঝি তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। সে সময় গলায় ও মাথায় ব্যথা, জ্বর, মৃদু শ্বাসকষ্ট ছিল। মৃদু উপসর্গ থাকায় তিনি করোনা পরীক্ষা করান। জানা যায়, সেই যুবক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তারপর চিকিৎসা শুরু হয়। কিছুদিন পর ফের পরীক্ষা করা হয়। সেইবার পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এরপরই বাঁধে বিপদ। মে মাসের শেষের দিকে সেই যুবকের শরীরে ফের করোনার উপসর্গ দেখা যায়। পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্টও পজিটিভ আসে। তবে প্রথমবারের থেকে দ্বিতীয়বার তাঁর শারীরিক অবস্থা আরও বেশি খারাপ হয়। তীব্র শ্বাসকষ্ট থাকায় তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করতে হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই যুবকের অক্সিজেনের ঘাটতি ছিল।

[আরও পড়ুন : পরীক্ষার মাঝে প্রসব যন্ত্রণা নিয়েই লেখা সম্পূর্ণ আইনের ছাত্রীর, কুর্নিশ জানাল নেটদুনিয়া]

চিকিৎসকরা একসময় দাবি করেছিলেন যে, একবার করোনা আক্রান্ত হলে তাঁর শরীরে দ্বিতীয়বার দাঁত ফোটাতে পারবে না এই জীবাণু। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই সেই ধারণা ভুল প্রমাণিত হয়। বরং নতুন তত্ত্ব উঠে আসে। বলা হয়, একবার করোনা আক্রান্ত হলে তিন মাস সেই অ্যন্টিবডি শরীরকে রক্ষা করতে পারে। কিন্তু সেই তত্ত্বের সামনেও প্রশ্ন তুলে দিল নেভেদার ঘটনা। বিশেষজ্ঞদের একটি দল জানিয়েছে, ওই ব্যক্তির উপর আরো পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন রয়েছে। প্রথমবার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও তাঁর শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়নি কেন, সেটাই এখন বিশেষজ্ঞদের জানার বিষয়।

[আরও পড়ুন : ‘ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা নয়, যা আছে তাই দিয়েই লড়াই করুন’, পরামর্শ WHO কর্তার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement