BREAKING NEWS

১৭ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  রবিবার ৩১ মে ২০২০ 

Advertisement

লন্ডনে সাংবাদিক সম্মেলনে হেনস্তার শিকার পাক বিদেশমন্ত্রী

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 13, 2019 12:02 pm|    Updated: July 13, 2019 12:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের আন্তর্জাতিক মঞ্চে মুখ পুড়ল পাকিস্তানের। লন্ডনে ‘সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা’ সংক্রান্ত বক্তৃতা দিতে গিয়ে, সাংবাদিকদের বেনজির বিক্ষোভের মুখে পড়তে হল পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশিকে। তাঁকে বয়কট করে সভাগৃহ ছেড়ে বরিয়ে যান সাংবাদিকরা। বাধ্য হয়ে খালি সভাকক্ষেই নিজের বক্তব্য রাখেন পাক বিদেশমন্ত্রী।   

[আরও পড়ুন: সাবমেরিনে মাদক পাচার রুখে দিলে মার্কিন সেনা, দেখুন রোমহর্ষক অভিযানের ভিডিও]

জানা গিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার লন্ডনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে সওয়াল করছিলেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। কিন্তু তাল কাটল কানাডার এক সাংবাদিকের প্রশ্নে। এজরা লেভান্ট নামে ওই সংবাদিক তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করার জন্য সরাসরি পাক সরকারের বিরুদ্ধে আঙুল তোলেন। কানাডার ওই সাংবাদিক বলেন, “আপনি সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ে কথা বলছেন, কিন্তু আপনার দেশই আমার লেখা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে। আমার লেখায় নাকি ইসলামের অবমাননা করা হয়েছে। আপনারাই আমার টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করিয়েছেন। আপনাদের দেশেই সাংবাদিকদের উপর সব থেক বেশি হামলা হয়। আপনি একটি ঠগ বই কিছু নন।”

এহেন বেনজির তোপে কার্যত হকচকিয়ে যান পাক বিদেশমন্ত্রী। নিজের সমর্থনে তিনি দাবি করেন, পাকিস্তানেই নাকি সব থেকে বেশি স্বাধীনভাবে কাজ করেন সাংবাদিকরা। যদিও তাঁর যুক্তি ধোপে টেকেনি। পাকিস্তানে সাংবাদিক নিগ্রহের প্রতিবাদে সভাগৃহ ছেড়ে চলে যান সংবাদকর্মীরা। প্রায় পাঁচশো জনের সভাকক্ষে থেকে যান মাত্র ১৫ জন মানুষ। তাঁদের মধ্যে অর্ধেক পাক দূতাবাসের কর্মী ও বাকিরা নিরাপত্তারক্ষী। খানিকটা যেন খালি চেয়ারগুলির উদ্দেশেই প্রায় ৩০ মিনিট ভাষণ দেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি।

কয়েকদিন আগেই পাকিস্তানে ‘গুম খুন’ নিয়ে একটি প্রবন্ধ প্রকাশ করে শাহজেব জিলানি নামের এক সাংবাদিকের বিরদ্ধে সন্ত্রাসবাদে জড়িত থকার অভিযোগ আনা হয়। পাক সেনার নির্দেশে এই কাজটি কর হয় বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, চলতি মাসেই জেলবন্দি পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারির সাক্ষাৎকার সম্প্রচার করার জন্য তিনটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে পাক সরকার। পাশাপাশি কয়েকজন সাংবাদিককেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।       

[আরও পড়ুন: মনিবকেই ছিঁড়ে খেল ১৮টি সারমেয়! প্রমাণে চোখ কপালে তদন্তকারীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement