২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Taliban Terror: ‘পাকিস্তান আমাদের জন্ম দিয়েছে, ওটাই দ্বিতীয় বাড়ি’, জানিয়ে দিল তালিবান মুখপাত্র

Published by: Biswadip Dey |    Posted: August 27, 2021 12:55 pm|    Updated: August 27, 2021 12:55 pm

Pakistan is like a second home, says Taliban spokesperson Zabihullah Mujahid। Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ”পাকিস্তান (Pakistan) আমাদের আরেক বাড়ি। পাকিস্তানই তালিবানের (Taliban) জন্ম দিয়েছে।” সরাসরি একথা জানিয়ে দিল তালিবান মুখপাত্র জাবিউল্লা মুজাহিদ। এক পাক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে একথা মেনে নিল মুজাহিদ। বারবার গুঞ্জন উঠেছে, আফগানিস্তানে (Afghanistan) তালিবানের কবজার পিছনে রয়েছে পাকিস্তানের হাত। এই পরিস্থিতিতে খোদ তালিবান মুখপাত্রের এমন দাবিতে এই গুঞ্জনের অস্পষ্টতা কাটিয়ে কার্যত দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গেল দুই দেশের প্রকৃত সম্পর্ক।

ঠিক কী জানিয়েছে ওই তালিবান মুখপাত্র? তার কথায়, ”আফগানিস্তানের সীমান্তে রয়েছে পাকিস্তান। ধর্মের দিক থেকে দেখলে আমরা ঐতিহ্যগত ভাবে সম্পর্কযুক্ত। দুই দেশের মানুষের পারস্পরিক সম্পর্ক ভাল। তাই আমরা আগামী দিনে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক আরও গভীর করতে চাই।”

[আরও পড়ুন: সুরাপ্রেমীদের জন্য সুখবর! আগামী মাসেই রাজ্যে কমতে পারে মদের দাম]

এপ্রসঙ্গে আরও বলতে গিয়ে মুজাহিদ জানিয়ে দেয়, আফগানিস্তানকে নতুন করে গড়ে তুলতে ভারত-সহ অন্যান্য দেশের সাহায্য চায় তালিবান। কিন্তু পাকিস্তানের ব্যাপারটা বাকি দেশগুলির তুলনায় একেবারেই আলাদা। ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে অন্যান্য ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে পাকিস্তানকেই। সেই প্রসঙ্গেই তাকে বলতে শোনা যায়, ”পাকিস্তান আমাদের আরেক বাড়ি।” তালিবানের জন্ম যে পাকিস্তানের হাতেই, সেকথাও জানায় তালিবান মুখপাত্র।
সেই সঙ্গে তালিবানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়েও কথা বলে মুজাহিদ। সিএনএন-নিউজ ১৮-কে সে জানিয়েছে, ”সবেমাত্র একটা লড়াই শেষ করেছি আমরা। এবার সেই অধ্যায়কে পিছনে ফেলে এগিয়ে যাওয়ার পালা। সেই নতুন অধ্যায়ে সমস্ত দেশের সহায়তা চাই আমাদের।”

এই মুহূর্তে গোটা আফগানভূমই জ্বলছে খিদের জ্বালায়। ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রামের সাম্প্রতিক রিপোর্ট বলছে, প্রতি দু’জন আফগানবাসীর মধ্যে একজন অভুক্ত। অর্থাৎ কাবুলিওয়ালার দেশে প্রায় দেড় কোটি মানুষ এই মুহূর্তে খাবার পাচ্ছেন না। সে দেশে ২০ লক্ষ শিশু ভয়াবহ অপুষ্টির শিকার। দু’দশক আগের অন্ধকারময় স্মৃতি এখন নতুন করে জড়িয়ে ধরছে আফগানিস্তানের মানুষের দৈনন্দিন জীবনকে। তালিবান বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালিয়ে আগের সরকারের সাহায্যকারীদের খুঁজে বের করতে চাইছে। এমনই অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতিতে সেদেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত গোটা বিশ্বই।

[আরও পড়ুন: ৩ হাজারে মিলছে জল, ভাতের দাম সাড়ে ৭ হাজার টাকা, চরম দুর্ভোগ কাবুল বিমানবন্দরে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে