১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বালুচিস্তানে দরগায় বিস্ফোরণে মৃত বেড়ে ৫২

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 13, 2016 10:40 am|    Updated: November 13, 2016 10:40 am

Pakistan Shah Noorani shrine bomb kills 52

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের বালুচিস্তানের একটি সুফি দরগায় বিস্ফোরণের ফলে কমপক্ষে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ জখম হয়েছেন শতাধিক মানুষ, খবর বিবিসির৷ নিহতদের মধ্যে কয়েকজন মহিলা ও শিশু রয়েছে৷ আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা সংকটজনক হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে প্রশাসনের আশঙ্কা৷ পুলিশ সূত্রকে উদ্ধৃত করে একটি সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে, এদিন বালুচিস্তানের দরগায় আত্মঘাতী হামলা যে চালিয়েছে, তার বয়স মাত্র চোদ্দ বছর৷ হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট (আই এস)৷ এদিনের ঘটনার কড়া নিন্দা করেছেন পাকিস্তানের প্রেসিডেণ্ট মামনুন হুসেন এবং পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ৷ পাক প্রেসিডেন্ট তাঁর বার্তায় বলেছেন, “দেশ থেকে সন্ত্রাসকে নির্মূল করতে সবরকম পদক্ষেপ করা হবে৷”

শনিবার করাচি থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরে প্রত্যন্ত লাসবেলা জেলায় এই বিস্ফোরণ ঘটে৷ সন্ধ্যায় স্থানীয় একটি সুফি দরগায় ‘ধামাল’ নামে একটি নাচের অনুষ্ঠান ছিল৷ ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রায় পাঁচশো থেকে ছ’শো মানুষ সেখানে হাজির হয়েছিলেন৷ বালুচিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মির সরফরাজ বুগতি এদিনের বিস্ফোরণের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন৷ বুগতি জানিয়েছেন, একটি প্রত্যন্ত এলাকায় এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে৷ সন্ধ্যার অন্ধকার নেমে যাওয়ায় নিহত ও আহতদের উদ্ধারের কাজ আরও কঠিন হয়ে পড়ে৷ আবার বিস্ফোরণের পর বেশ কিছুক্ষণ গোটা এলাকার বিদ্যুত্‍ ব্যবস্থাও বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে৷ ফলে সমস্যা গভীরতর হয়৷ বুগতি জানিয়েছেন, এদিন বিস্ফোরণে আহতদের মধ্যে যাঁদের অবস্থা রীতিমতো সঙ্কটজনক, জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসার জন্য তাঁদের করাচি এবং খুজদারের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ অকুস্থলে উদ্ধারকাজের গতি বাড়াতে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী৷ পাঠানো হয়েছে চিকিৎসকদের দলও৷ বিস্ফোরণের পর শাহ নুরানি দরগা এলাকায় শুধুই চোখে পড়েছে অ্যাম্বুল্যান্সের আনাগোনা৷ নিরাপত্তা কর্মীরা একের পর এক রক্তাক্ত ব্যক্তিকে হাসপাতালে পাঠিয়েছেন৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে আহতদের চিকিত্সার জন্য রক্তদানের আহ্বান জানানো হয়েছে৷

এদিকে, স্থানীয় তহসিলদার জাভেদ ইকবাল জানিয়েছেন, শাহ নুরানি দরগায় প্রতিদিন হাজারেরও বেশি ভক্তের সমাগম হয়৷ কিন্তু ওই দরগায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা যথেষ্ট ঢিলেঢালা৷ প্রাথমিক চিকিৎসারও কোনও উপযুক্ত ব্যবস্থা নেই৷ এমনকী, একটি অ্যাম্বুল্যান্সও নেই৷ চলতি বছরের আগস্ট মাস থেকে বালুচিস্তানে এ পর্যন্ত তিনটি বড় ধরনের বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল৷ এর আগের দু’টি বিস্ফোরণে যথাক্রমে ৭০ ও ৬৪ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছিল৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে