BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কাটছে ঘরবন্দি দশা, সোমবার থেকে মাস্কে মুখ ঢেকেই বাইরে পা রাখবেন স্প্যানিশরা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: May 3, 2020 12:48 pm|    Updated: May 3, 2020 12:50 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পরিস্থিতি যে খুব ভাল, এমনটা বলা চলে না। তা সত্ত্বেও লকডাউন ধীরে ধীরে শিথিল করে দিচ্ছে স্পেন। আগামী সপ্তাহে স্প্যানিশদের ঘরবন্দি দশা কাটছে। সোমবার থেকে বাইরের জগতের সঙ্গে নতুন করে সম্পর্ক তৈরি হতে চলেছে। গণপরিবহণ, খেলাধুলো, পার্কে বেডানো – সবেতেই ছাড়। তবে শর্ত একটাই, যে কোনও জনবহুল স্থানে মাস্ক পরতেই হবে। নইলে ফের নোভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থাবা বসাতে পারে শরীরে। এমনই ঘোষণা করেছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেড্রো স্যাঞ্চেজ।

গৃহবন্দি দশায় কিশোর প্রজন্মের মানসিক সমস্যার কথা ভেবে গত সপ্তাহে তাদের জন্য লকডাউন শিথিল করে দেওয়া হয়েছে। ১৪ বছরের বেশি বয়সিদের বাইরে বেরনোর অনুমোদন দিয়েছে প্রশাসন। এবার বড়দের পালা। সাত সপ্তাহ পর, সোমবার থেকে তাঁরাও ছাড়া পেয়ে যাচ্ছেন। প্রত্যেকের মুখে যাতে মাস্ক থাকে, তা নিশ্চিত করতে অন্তত ৬০ লক্ষ মাস্ক বিলি করেছে প্রশাসন। এটা শুধু শহরাঞ্চলের জন্য। আরও ৭০ লক্ষ মাস্ক দেওয়া হয়েছে গ্রামাঞ্চলের প্রশাসনিক কর্তাদের হাতে। যাতে তাঁদের মাধ্যমে সকলের হাতে তা পৌঁছয়। দোকান-বাজার এবং গণপরিবহণ – এইসব ক্ষেত্রে মাস্ক থাকাটা বাধ্যতামূলক।

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ! অ্যানিমেশনের মাধ্যমে আমেরিকাকে নিয়ে ‘মশকরা’ চিনের]

লকডাউন থেকে দেশকে মুক্ত করার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছে স্যাঞ্চেজ প্রশাসন। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের জন্য মোট ১৬ বিলিয়ন ইউরো আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করা হয়েছে। যা কিনা এই লকডাউনের সময়ে ব্যবসায় যে বিপুল ক্ষতি হয়েছে, তার কিছুটা সামাল দিতে পারবে। মার্চে ১৪ তারিখ থেকে সেখানে লকডাউন চলছিল। প্রধানমন্ত্রী স্যাঞ্চেজের মতে, স্পেনই ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে কঠোর লকডাউন পালন করেছে। আজ তার পুরস্কার স্বরূপ নাগরিকদের বাইরে বেরতে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: আঁধার কাটছে করোনার আঁতুরঘরে, চিনে গত ২৮ দিনে আক্রান্ত মাত্র এক!]

এই ঘোষণায় ভারী খুশি স্প্যানিশ আমজনতা। মাদ্রিদের কয়েকজন তো বলছেন, ‘যেন নতুন করে স্বাধীনতার স্বাদ পাচ্ছি।’ কেউ আবার বলছেন, ‘শারীরিক এবং মানসিক স্বাস্থ্য ভাল রাখার জন্য বাইরে বেরনো খুবই প্রয়োজন।’ মাদ্রিদের মতো বার্সেলোনাবাসীও বেশ চাঙ্গা হয়ে উঠেছেন। সপ্তাহান্তটাই তাঁরা বেশ উপভোগ করছেন। পথে কেউ কেউ সযত্নে স্প্যানিশ ভাষায় লিখে ফেলেছেন – ‘এসো, স্বাধীনতা।’ অর্থাৎ স্পেন ফিরছে স্পেনের আপন ছন্দে। অথচ সংকট যে পুরোপুরি কেটেছে, তাও তো বলা যায় না। এখনও পর্যন্ত সে দেশে ২ লক্ষ ৪৫ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত। মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজার ছাড়িয়েছে। তবুও জনসচেতনতা আর আত্মবিশ্বাসে ভর করে লকডাউন শিথিলের পথেই হাঁটল স্প্যানিশরা।

SPain-kids

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement