BREAKING NEWS

১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  সোমবার ২৫ মে ২০২০ 

Advertisement

মহামারিতেও অক্লান্ত এয়ার ইন্ডিয়া, পাইলটদের নিরলস পরিশ্রমকে কুর্ণিশ জানাল পাকিস্তান

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 5, 2020 11:32 am|    Updated: April 5, 2020 11:32 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে মহামারি চলছে। আর এই পরিস্থিতি যেন সমস্ত চেনা ছক ওলট পালট করে দিচ্ছে। নাহলে কি, পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকতেই এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান চালককে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন সে দেশের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের (ATC) আধিকারিকরা। আর না, পশ্চিম এশিয়ার কোনও দেশ একটানা এক হাজার মাইল উড়ানের অনুমতি দেয়! করোনা পরিস্থিতির মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ত্রাণ পৌঁছে দিতে, কখনও আবার আটকে পড়া নাগরিকদের বাড়ি ফেরাতে এয়ার লিফট করছেন এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান চালকরা। তাঁদের সেই প্রচেষ্টাকেই এবার কুর্ণিশ জানিয়ে পড়শি দেশ পাকিস্তান। প্রশংসায় পঞ্চমুখ ইরানও।

ভারতে আটকে থাকা জার্মান নাগরিকদের ও ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে জার্মানির ফ্রাঙ্কফুটের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় একটি এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান। বিমান নিয়ে চালক পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকতেই তাঁকে প্রশংসয়া ভরিয়ে দেন এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের আধিকারিকরা। বলেন, “আসালাম ওয়ালাইকুম, করাচির এয়ার ট্র্যাফিক কন্ট্রোল এয়ার ইন্ডিয়াকে স্বাগত জানাচ্ছে। আমরা গর্বিত।” সংবাদসংস্থা ANI-কে ওই সিনিয়র ক্যাপ্টেন বলেন, “এটা আমার এবং গোটা এয়ার ইন্ডিয়া পরিবারের কাছে গর্বের মুহূর্ত।”

আরও পড়ুন : যত্রতত্র ছড়িয়ে দেহ, হিসাব নেই মৃত্যুর! লাতিন আমেরিকার এই শহর যেন সাক্ষাৎ যমপুরী]

জানা গিয়েছে, পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকতেই পাক এটিসি প্রশ্ন করে, “ফ্র্যাঙ্কফুর্টে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে এই বিমান যাচ্ছে?” এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলট জবাব দিতেই ATC’র তরফ থেকে বলা হয়, “সরাসরি কেবুদ পর্যন্ত অনুমতি দেওয়া রইল।” এরপরই ফের প্রশংসা করে পাক আধিকারিক বলেন, “বিশ্বব্যাপী মহামারির মধ্যেও আপনারা উড়ান চালু রেখেছেন। এর জন্য আমরা গর্বিত।” তখনও বিমান চালকদের অবাক হওয়ার পালা আরও বাকি। পাক এটিসি তেহরানের রেডারের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেয় এবং এয়ার ইন্ডিয়ার দু’টি বিমানের যাবতীয় তথ্যও তাদের জানিয়ে দেন।

[আরও পড়ুন : করোনায় কাবু আমেরিকা, ভারতের থেকে ওষুধ চেয়ে মোদিকে ফোন ট্রাম্পের]

তবে শুধু পাকিস্তান নয়, ইরানেও এয়ার ইন্ডিয়ার পাইলটদের জন্য বিস্ময় অপেক্ষা করেছিল। বিমান চালক জানাচ্ছেন, “ইরান ATC এক হাজার মাইলের জন্য সরাসরি অনুমতি দেয়। আমার গোটা কেরিয়ারে এরকম কখনও হয়নি।’ পশ্চিম এশিয়ার কোনও দেশই নিজেদের প্রতিরক্ষাক বিমান ছাড়া কাউকেই একটানা এতটা রাস্তার জন্য একবারে অনুমতি দেয় না।” সবমিলিয়ে গোটা বিশ্বে বন্দিত আয়ার ইন্ডিয়ার বিমান পরিষেবা। যা নিসন্দেহে দেশের জন্য সন্মানের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement