BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  শনিবার ২৮ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

আইএসের সঙ্গে একই সারিতে নাভালনি! রাশিয়ার সন্ত্রাসবাদী তালিকায় ঠাঁই পুতিন সমালোচকের

Published by: Paramita Paul |    Posted: January 25, 2022 4:49 pm|    Updated: January 25, 2022 7:03 pm

Russia puts Putin critic Navalny on 'Terrorists, Extremists' list

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচনা করে জেলে গিয়েছেন তিনি। এবার রাশিয়ার সন্ত্রাসবাদী এবং চরমপন্থী তালিকায় ঠাঁই হল রাশিয়ার বিরোধী নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনির (Alexei Navalny) । শুধু তিনি একা নন, এই নিষিদ্ধ তালিকায় নাম জুড়েছে নাভালনি ঘনিষ্ঠ একাধিক ব্যক্তির।

অভিযোগ, বিরোধীদের লাগাতার কণ্ঠরোধের চেষ্টা চলছে রাশিয়ায় (Russia)। পুতিনের কট্টর বিরোধী নাভালনির দুর্নীতি বিরোধী সংস্থার নাম গত বছরই চরমপন্থী তালিকায় পাঠানো হয়েছে। এমনকী, সংস্থাটিকে নিষিদ্ধও করা হয়েছে। এবার নাভালনি ঘনিষ্ঠ ন’জনের নাম এই তালিকায় যুক্ত করল রাশিয়া সরকার। অর্থাৎ এদিন থেকে সে দেশে নাভালনি ও তাঁর সঙ্গীদের জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে একই সারিতে বসানো হল। যা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

[আরও পড়ুন: বেসরকারি হাসপাতালের বিল নিয়ে প্রচুর অভিযোগ, রোগীদের পাশে দাঁড়িয়ে কড়া নির্দেশিকা রাজ্যের]

উল্লেখ্য, গত বছর জানুয়ারি মাসে সুস্থ হয়ে বার্লিন থেকে মস্কো (Moscow) ফিরতেই গ্রেপ্তার করা হয় নাভালনিকে। গত বছর তাঁকে বিমানে বিষ দিয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল। এই ষড়যন্ত্রের জন্য তিনি পুতিনকে দায়ী করেছিলেন। ক্রেমলিন এমন দাবিকে পত্রপাঠ উড়িয়ে দিয়েছিল। পরে গ্রেপ্তারির ভয়কে অগ্রাহ্য করেই তিনি মস্কোতে ফিরে আসেন। এরপরই তাঁকে জেলবন্দি করা হয়। কয়েকদিন আগেই তাঁকে মস্কোর জেল থেকে সরিয়ে ভ্লাদিমির শহরের একটি কারাগারে পাঠানো হয়। সেখানেও নাভালনি নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন।

 প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচক হিসেবে পরিচিত নাভালনি। কিছুদিন আগে জেল থেকেই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিচারকের সামনে নিজের বক্তব্য পেশ করেন তিনি। কারাগারে রোজ রাতে চলা নির্যাতনের কথা তুলে ধরেন। নাভালনির কথায়, “প্রতি রাতে ওরা আমার কামরায় প্রবেশ করে তল্লাশি চালায়, আমাকে ঘুমোতে দেওয়া হয় না। ঘণ্টায় ঘণ্টায় তল্লাশির নামে আমার উপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে। রাত হলেই আমি আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। এসব কেন হচ্ছে। আমি কি দেওয়াল টপকে পালানোর চেষ্টা করেছি? আমি কি জেল থেকে পালানোর জন্য কোনও সুড়ঙ্গ খুঁড়ছি? নাকি আমি বন্দুক ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছি? তাহলে আমার সঙ্গে এমন ব্যবহার কেন করা হচ্ছে। এমনটা চলতে থাকলে মানুষ কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই পাগল হয়ে যাবে।” এই অমানুষিক অত্যাচারের মাঝেই এবার আইসিসের সঙ্গে এক সারিতে বসানো হল তাঁকে। 

[আরও পড়ুন: মসুর ডালে মেশানো সর্বনাশা পাউডার! ভেজাল কারবার চালানোয় ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করল EB]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে