৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রবল ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল তুরস্ক, মৃত কমপক্ষে ১৮

Published by: Bishakha Pal |    Posted: January 25, 2020 10:50 am|    Updated: January 25, 2020 4:39 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভয়াবহ ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল তুরস্ক। দেশের পূর্বদিকে এই কম্পন অনুভূত হয়েছে। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৬.৮। ভূমিকম্পের ফলে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহতের সংখ্যা ৫০০রও বেশি। এখনও প্রায় ৩০ জন ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে রয়েছে বলে অনুমান। 

স্থানীয় সময় রাত ৮.৫৫ নাগাদ পূর্ব তুরস্কের এলাজিগ প্রদেশের একটি ছোট শহর সিভরাইসে কম্পন অনুভূত হয়। জায়গাটি রাজধানী আঙ্কারার প্রায় ৭৫০ কিলোমিটার পূর্বে। রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৬.৮। ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৭ কিলোমিটার নিচে ছিল ভূমিকম্পের কেন্দ্রবিন্দু। এরপরে বেশ কয়েকটি আফটার শক অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে তার মাত্রা ছিল সর্বাধিক ৫.৪। কম্পন শুরু হওয়া মাত্রই আতঙ্কে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসেন বাসিন্দারা। কিন্তু অনেকে ভিতরেই আটকে পড়েন। হুড়মুড়িয়ে বাড়ি ভেঙে পড়ার পর ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে যান তাঁরা। তাঁদের অনেকককে এখনও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। 

[ আরও পড়ুন: ব্রেক্সিট পরবর্তী ব্রিটেনে অভিবাসন নীতিতে বড় বদল আনতে চলেছেন জনসন ]

উদ্ধারকারী দলের সদস্যদের পাশাপাশি পুলিশ ও দমকলকর্মীরাও উদ্ধার কাজে হাত লাগিয়েছেন। দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, যে কোনও রকম সাহায্যের জন্য সেনাকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রেসেপ তাইয়েপ এরদোগান টুইটারে বলেছেন, এলাজিগের ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশেই রয়েছে সরকার। তাদের সম্পূর্ণ সাহায্য করা হবে। এ বিষয়ে সমস্ত দপ্তরকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

তুরস্কে এর আগে দুটি বড় ভূমিকম্প অনুভূত হয়। ১৯৯৯ সালে উত্তর-পশ্চিম তুরস্কে দুটি শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে এবং প্রায় ১৮,০০০ মানুষ নিহত হয়েছিল। ২০১০ সালে এলাজিগে একটি ভূমিকম্পে ৫১ জন মারা গিয়েছিলেন।

[ আরও পড়ুন: কানাডায় নতুন ঠিকানা হ্যারি-মেগানের, পাপারাজির কৌতুহলের বাইরে গিয়ে অন্য জীবন ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement