BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জার্মানির ওবারহাউসেন শহরে অজ্ঞাত পরিচয়ের আততায়ীর হামলা, ছুরিকাহত একাধিক

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 20, 2020 8:45 am|    Updated: November 20, 2020 8:58 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফ্রান্স ও অস্ট্রিয়ার পর এবার জার্মানিতেও অজ্ঞাত পরিচয়ের আততায়ীর হামলায় আতঙ্ক ছড়াল। ঘটনাটি ঘটেছে জার্মানি (Germany) -এর ওবারহাউসেন শহরে। এর ফলে এখনও পর্যন্ত একাধিক জনের জখম হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার জার্মানির ওবারহাউসেন (Oberhausen) শহরের একটি জনবসতি এলাকায় ছুরি নিয়ে আচমকা হামলা চালায় এক অজ্ঞাত পরিচয়ের এক আততায়ী। এর জেরে একাধিক জনের জখম হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। বর্তমানে তাঁরা একটি হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসাধীন। অন্যদিকে ওই আততায়ীকেও গুরুতর জখম অবস্থায় গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ইনস্টাগ্রামে ‌বিকিনি মডেলের উষ্ণ ছবি ‘Like’ পোপ ফ্রান্সিসের! সরগরম নেটদুনিয়া]

পুলিশ সূত্রে খবর, অজ্ঞাত পরিচয়ের এক আততায়ীর হামলায় জার্মানির ওবারহাউসেন শহরে একাধিক মানুষ ছুরিকাহত হয়েছেন। তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করার পাশাপাশি ওই আততায়ীকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে জেরা করে হামলা চালানোর কারণ জানার চেষ্টা চলছে। তবে প্রাথমিকভাবে এই ঘটনার পিছনে কোনও জঙ্গি সংগঠনের হাত রয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ফ্রান্স ও ডেনমার্কের মতো জার্মানিতেও সাম্প্রদায়িক অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা চলছে। শ্বেতাঙ্গ ও কট্টরপন্থীদের কিছু সংগঠন মুসলিম দেশ থেকে তাড়ানোর পরিকল্পনা করছে। সরকারের তরফে এই ধরনের ঘটনা রুখতে বিভিন্ন পরিকল্পনা নেওয়া হলেও মৌলবাদের প্রভাব বাড়ছে। কয়েকদিন আগে জার্মানিতে রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থী ও মুসলিম শরণার্থীদের খুনের ছক করায় ১২ জনকে নাগরিককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ধৃতরা নিজেদের উদ্দেশ্যপূরণের জন্য একটি সংগঠনও তৈরি করেছিল। মুসলিমদের হত্যা করে জার্মানিতে গৃহযুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি করতে চেয়েছিল তারা। এর জন্য ওই সংগঠনের দুই শীর্ষ নেতা বেশ কয়েকটি গোপন বৈঠকও করে। কিন্তু, তাদের সেই ছক শেষপর্যন্ত বাস্তব রূপ পেল না। হামলা চালানোর আগেই তাদের গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

[আরও পড়ুন: দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় শুরু বিশ্বের অন্যতম কঠোর লকডাউন! কার্যত স্তব্ধ জনজীবন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement