৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাগে এসেছে করোনা, ইউহানের কোভিড হাসপাতাল বন্ধ করল চিন    

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 16, 2020 5:23 pm|    Updated: April 16, 2020 5:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার বিরুদ্ধে বেশ কয়েক মাস লড়াইয়ের পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে পরিস্থিতি। খুঁড়িয়ে হলেও ফের স্বাভাবিক ছন্দে পা ফেলছে চিন । তাই এবার ঝাঁপ ফেলল ইউহান শহরের কোভিড হাসপাতাল। বুধবার চিনের সরকারি সংবাদ সংস্থা জিনহুয়া এই খবর জানিয়েছে। 

[আরও পড়ুন: ‘একমাত্র করোনার প্রতিষেধকই পারে বিশ্বকে স্বাভাবিক ছন্দে ফেরাতে’, আশঙ্কা রাষ্ট্রসংঘের]

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে অচেনা জ্বরে আক্রান্ত হন চিনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী ইউহান শহরের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা। তারপরই প্রকাশ্যে আসে করোনা ভাইরাসের কথা। বাকিটা ইতিহাস। বর্তমানে গোটা বিশ্ব কাঁপছে কোভিড-১৯-এর ত্রাসে। তবে, প্রায় ৪ হাজার মানুষের মৃত্যুর পর পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছে বেজিং। আপাতত হুবেই প্রদেশে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সন্ধান না মেলায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ইউহানের অস্থায়ী করোনা হাসপাতালটি। বাড়ি ফিরে গিয়েছেন কোভিডের সঙ্গে লড়াইয়ে ফ্রন্টলাইনে থাকা শেষ দলের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। তবে, চিনের উদ্বেগ বাড়াচ্ছে রাশিয়ার সীমান্ত সংলগ্ন সুইফেংহে শহর। সেখানে বিদেশ ফেরতদের করোনার সুপার ক্যারিয়ার বা বাহক  হয়ে ওঠার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

উল্লেখ্য, বিশ্বে করোনা ভাইরাসের দাপট শুরু হয়েছিল ইউহান শহর থেকেই। ফেব্রুয়ারি মাস থেকে সংক্রমণ বাড়তেই ওই শহরে এক হাজারেরও বেশি শষ্যাবিশিষ্ট দু’দুটি হাসপাতাল তৈরি করে চিন। সময় লেগেছিল মাত্র ১০ দিন। শুধু তাই নয়,  শহরে এক ডজনেরও বেশি অস্থায়ী স্বাস্থ্যকেন্দ্রও গড়ে তুলেছিল চিন। মোট ৪২ হাজার জন চিকিৎশোক ও স্বাস্থ্যকর্মীকে নিয়োগ করা হয়েছিল সেখানে। তাঁদের মধ্যে আক্রান্ত হয়ে পড়েছিলেন তিন হাজারেরও বেশি স্বাস্থ্যকর্মী। কোভিড নিয়ন্ত্রণে আসার পর স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিকে পর্যায়ক্রমে বন্ধ করে দেয় হুবেইয়ের প্রশাসন। এবার ইউহানের লেইসেংসাং এলাকায় বন্ধ করে দেওয়া হল অস্থায়ী সেই হাসপাতালটিও। সেখানে কর্মরত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের শেষ দলটিকেও ফিরিয়ে নিয়েছে প্রশাসন।

[আরও পড়ুন: করোনার ভরকেন্দ্র আমেরিকা, চব্বিশ ঘণ্টায় মার্কিন মুলুকে মৃত ২ হাজারেরও বেশি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement