২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘আমেরিকা ও ভারতের চরদের রেহাই নেই’, মার্কিন সেনার তথ্যভাণ্ডার হাতে পেয়েই হুমকি তালিবানের

Published by: Paramita Paul |    Posted: August 29, 2021 4:43 pm|    Updated: August 29, 2021 5:03 pm

Taliban's Al Isha unit uses US database to hunt down Afghans who helped RAW and US army | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মার্কিন সেনার (US Troop) ছেড়ে যাওয়া তথ্যভাণ্ডারে থাবা বসিয়েছে তালিবান। আর তাতেই ঘুম উড়েছে আফগানিস্তানের (Afghanistan) আমজনতার। কারণ, ওই তথ্যভাণ্ডারেই তো লুকিয়ে রয়েছে আফগান নাগরিকদের প্রাণভোমরা। শুধু কি আফগান নাগরিক, ওই তথ্যভাণ্ডারেই তো রয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার চরেদের বৃত্তান্তও। আর সেই তথ্যভাণ্ডারকে হাতিয়ার করেই এবার চোখ রাঙাচ্ছে তালিব জেহাদিরা। ভারতের ‘র’ এবং প্রাক্তন আফগান সরকারের এনডিএস-কে হুঁশিয়ারিও দিয়েছে তারা।

তালিবানের শাখা আল ইশা (Al Isha)। সেই সংগঠনের কমান্ডাররাই ওই তথ্যভাণ্ডার খতিয়ে দেখছে। এ প্রসঙ্গে তালিবানের (Taliban Terror) শাখা আল ইশা শাখার ব্রিগেডিয়ার নওয়াজউদ্দিন হাক্কানি বলেন, “আমেরিকান, আফগানিস্তানের ন্যাশনাল ডিরেক্টরেট অফ সিকিউরিটি এবং র-এর হাতের পুতুলদের ছেড়ে দেব না। তাদের উপর সবসময় নজর রাখবে আল ইশা।” অর্থাৎ ২০০৯ সাল থেকে যে আফগান নাগরিকরা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষে মার্কিন বাহিনী, আফগান সরকার এবং ন্যাটো (Nato) বাহিনীকে সাহায্য করেছে। তাঁদের উপর এবার কড়া নজর রাখবে তালিবানরা।

[আরও পড়ুন: তালিবানি তাণ্ডবের মাঝেই খাস কলকাতায় উদ্ধার প্রচুর আফগানি মুদ্রা, ধৃত দুই আফগান নাগরিক]

'It's Their Struggle': US On Afghanistan exit as Taliban sweep provinces

 

আর এই হুঁশিয়ারির পরই আতঙ্কে কাঁপছেন আফগানরা। কারণ, অধিকাংশ আফগান নাগরিকই কখনও না কখনও মার্কিন বাহিনী বা ভারতীয় গোয়েন্দাদের (RAW) সাহায্য করেছে। এবার তাদের উপর তালিব-শাস্তির খাঁড়া যে নেমে আসবে তা বলাইবাহুল্য। পাশাপাশি, ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার চরেদের উপর পাশবিক অত্যাচার করে যে গোপন তথ্য জেহাদিরা বের করে আনবে না, তাও নিশ্চিতভাবে এখনই বলা যাচ্ছে না। কিন্তু এখন প্রশ্ন হল মার্কিন এই তথ্যভাণ্ডার কী? আর তা কীভাবে তালিবানের হাতে এল?

Taliban Terror

এই তথ্যভাণ্ডার আসলে ন্যাটো বাহিনীর বায়োমেট্রিক যন্ত্র। যেখানে আফগান নাগরিকদের হাতের ছাপ এবং চোখের মণি স্ক্যান করা রয়েছে। যার পোশাকি নাম এইচআইআইডিই। এই যন্ত্র ব্যবহার করে আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় তথ্য ভাণ্ডারে সহজেই ঢুকতে পারেবে তালিবরা। শুধু তা-ই নয়, ওয়াকিবহাল মহল জানাচ্ছেন, আফগান-আমেরিকান যৌথবাহিনীকে কারা সাহায্য করেছিল তা জানতেও সাহায্য করতে পারে এইচআইআইডিই। আর এই বায়োমেট্রিক তথ্য ফেলেই আফগানিস্তান ছেড়ে দেশে ফিরছে মার্কিন বাহিনী। তবে এই যন্ত্র হাতে পাওয়ার পর আফগানবাসীর ব্যক্তিগত তথ্য তালিবানের কাছে কতটা ফাঁস হয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি। তবে সেই তথ্য ফাঁস হলে আফগানিস্তানে যে ফের একবার রক্তগঙ্গা বইবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

[আরও পড়ুন: Afghanistan Crisis: ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ফের হামলা হতে পারে কাবুল বিমানবন্দরে, সতর্ক করলেন বাইডেন]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে