৭ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ২৫ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাত আটকে যাওয়া যাত্রীকে নিয়ে দিব্যি ছুটেছিল কলকাতা মেট্রো৷ তারই মর্মান্তিক পরিণতিতে ১৩ জুলাই বেশ কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ হয়ে যায় তিলোত্তমার লাইফলাইনের পরিষেবা৷ কিন্তু কেন এমন ঘটনা ঘটল, সপ্তাহখানেক কেটে গেলেও তার যথার্থ কারণ খুঁজে বের করতে পারেননি আধিকারিকরা৷ অনেকেই বলছেন, দুর্ঘটনা নিয়ে বিশেষ মাথাব্যথা নেই কর্তৃপক্ষের৷ তবে কলকাতা থেকে কয়েক যোজন দূরত্বে টেমসের তীরের লন্ডনের ছবিটা কিন্তু একেবারে অন্যরকম৷ যাত্রীসুরক্ষায় যে ঠিক কতটা উদ্বিগ্ন টিউব রেল কর্তৃপক্ষ, তারই প্রমাণ মিলল দিনকয়েক আগে ঘটা একটি ঘটনায়৷

[ আরও পড়ুন: মঞ্চে পারফরম্যান্সের সময়ই মৃত্যু ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমেডিয়ানের]

গত ১৭ জুলাই লন্ডনের উত্তর-পশ্চিম শাখার টিউব রেলে উঠতে যান এক মহিলা৷ আচমকা দরজায় চুল আটকাতে যায় তাঁর৷ চোখের সামনে সহযাত্রীর এমন অবস্থা দেখে ভয় পেয়ে যান অনেকেই৷ তড়িঘড়ি খবর পৌঁছয় চালকের কাছে৷ থমকে যায় ট্রেন৷ এরপর দরজা খুলে যাত্রীর চুল বের করা হয়৷ হ্যারো এবং ওয়েল্ডস্টোন স্টেশনের মাঝে ঘটা এই বিপত্তির জেরে ব্যাহত হয় ট্রেন চলাচল৷ ওইদিন প্রায় প্রতিটি ট্রেনই দেরিতে চলে৷

মহিলা যাত্রীর অভিযোগ, ট্রেনে ভিড় বেশি থাকায় খোলা দরজার মাঝে চুল আটকে গিয়েছিল তাঁর৷ তবে যাত্রী সুরক্ষায় কর্তৃপক্ষ যেভাবে তড়িঘড়ি উদ্যোগ নিয়ে ট্রেন থামিয়ে মহিলাকে উদ্ধার করেছে, তা দেখে আপ্লুত সকলেই৷

[ আরও পড়ুন: লাদেনকে ধরিয়ে ‘বন্দি’ চিকিৎসক, ইমরানের কাছে মুক্তির আবেদন করবেন ট্রাম্প!]

লন্ডনের এই ঘটনা শুনে রীতিমতো বিরক্ত কলকাতার বাসিন্দা৷ নিত্যদিন সময়ে না চলার অভিযোগে বিদ্ধ কলকাতার ঐতিহ্যবাহী পাতাল রেল৷ তার উপর আবার সজল কাঞ্জিলালের মর্মান্তিক মৃত্যুর পর প্রশ্নের মুখে সুরক্ষাও৷ লন্ডনের ঘটনার পরেও কি চোখ খুলবে না কলকাতা মেট্রো কর্তৃপক্ষের, প্রশ্ন নিত্যযাত্রীদের৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং