২১ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

করোনা রুখতে ব্যর্থতার অভিযোগ, WHO’র বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ ট্রাম্পের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 8, 2020 11:11 am|    Updated: July 8, 2020 11:11 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আর কোনও টালবাহানা নয়। এবার সরকারিভাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (World Health Organisation) সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করার প্রক্রিয়া শুরু করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার সরকারের তরফে মার্কিন কংগ্রেসে একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মাসখানেক আগেই ঘোষণা করেছিলেন, চিনের হাতের ‘পুতুল’ WHO থেকে বেরিয়ে যাবে আমেরিকা। সেই মতোই মঙ্গলবার বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে মার্কিন কংগ্রেসে।

মে মাসের শেষের দিকেই ট্রাম্প (Donald Trump) ঘোষণা করেছিলেন, ‘চিনের দালাল এবং হাতের পুতুল’ WHO’র সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করতে চায় আমেরিকা। মার্কিন প্রেসিডেন্টের অভিযোগ ছিল, WHO-এর নিয়ন্ত্রণ পুরোপুরি চিনের হাতে চলে গিয়েছে। তাছাড়া, করোনা রুখতে এবং করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে যে সংস্কারের প্রয়োজন, তা করে উঠতে পারেনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সেসময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “আমরা ওদের যে অতি প্রয়োজনীয় সংস্কারগুলি করতে বলেছিলাম, সেগুলি ওরা করতে পারেনি। সেজন্যই WHO’র সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করছি।” ট্রাম্পের সেই ঘোষণা মতোই মঙ্গলবার WHO থেকে বেরনোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে আমেরিকা। যা এই পরিস্থিতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভাবমূর্তির জন্য বড় ধাক্কা বলে মনে করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: বাতাসের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে করোনা! অবস্থান বদলে ইঙ্গিত দিল WHO]

বিতর্কিত এই সিদ্ধান্তের জন্য অবশ্য আগেই বিশ্বের দরবারে সমালোচিত হতে হয়েছে ট্রাম্পকে। খোদ রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব তাঁকে রাজনীতি ভুলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা করতে অনুরোধ করেছেন। এবার নিজের ঘরেও সমালোচনার মুখে পড়তে হল মার্কিন প্রেসিডেন্টকে। ডেমোক্র্যাটরা তাঁর সিদ্ধান্তকে ‘খামখেয়ালি’ বলে দেগে দিল। ডেমোক্র্যাটদের তরফে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বিডেন বললেন,”এই সিদ্ধান্তের ফলে আমেরিকাবাসীর কোনও লাভ হবে না। উলটে আমারা একা হয়ে যাব। আমেরিকানরা তখনই নিরাপদ থাকবে যখন বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্যসুরক্ষার এই লড়াইয়ে তাঁরা শামিল হবে। আমি নির্বাচনে জিতে আসার পর প্রথম দিনই ফের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় যোগদান করব।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement