২১ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

চিনের পরীক্ষাগারেই তৈরি হয়েছে করোনা! আমেরিকার পর সরব ব্রিটেনও

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 5, 2020 12:31 pm|    Updated: April 5, 2020 5:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘চিনের গবেষণাগার থেকে ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস।’ আমেরিকার পর এবার একই অভিযোগে সরব ব্রিটেনও। যদিও বিশেষজ্ঞদের দাবি, পশুদেহ থেকেই মারণ রোগের জীবাণু ছড়িয়েছে। তারপরেও চিনের গবেষণাগার থেকে জীবাণু ছড়ানোর তত্ত্ব উড়িয়ে দিচ্ছে না ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের নেতৃত্বাধীন জরুরিকালীন কমিটি কোবরা (Cobra)।অবশ্য তাঁদের অভিযোগ খারিজ করেছে ব্রিটেনের চিনা দূতাবাস। সে দেশে নিযুক্ত চিন দূত জেং রংয়ের দাবি, “এই অভিযোগ মিথ্যা। এই ধরণের অভিযোগ চিন ও তার নাগরিকদের আত্মত্যাগকে অসম্মানিত করছে। যদি চিনের গবেষণাগারে এই জীবাণু তৈরি হত, তাহলে সেখানে এত মৃত্যু ঘটত না।”

চিনের পর ইউরোপকে ভরকেন্দ্র বানিয়েছে করোনা। ইটালি, ফ্রান্স, স্পেনের পর ব্রিটেনেও মৃত্যু মিছিল চলছে। আক্রান্তের সংখ্যাও হু হু করে বাড়ছে। দেদার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চললেও প্রতিষেধক মেলেনি। এমনকী জীবাণু উৎপত্তি নিয়েও ধোঁয়াশা রয়েছে। অনেকেরই অভিযোগ, জৈব অস্ত্রে শত্রুদের ঘায়েল করতেই পরীক্ষাগারে এই মারণ জীবাণু বানাছিল চিন। সেখান থেকেই জীবাণু সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। আমেরিকা আগেই এই অভিযোগ জানিয়েছিল। এবার তাঁদের সুরে সুর মেলাল ব্রিটেনও। রানির দেশের পরিস্থিতি সামাল দিতে জরুরি কমিশন তৈরি করেছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ব্রিটেনের সংবাদপত্র ‘ডেইলি মেল’ কোবরা কমিশনের এক আধিকারিককে উদ্ধৃত করে লেখে, বিজ্ঞানীরা যতই বলুন, ইউহান প্রদেশের গবেষণাগারে জীবাণু তৈরির তথ্য উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

[আরও পড়ুন : কাবুলের গুরুদ্বারে হামলায় প্রাণহানি, গ্রেপ্তার ঘটনার মূলচক্রী আইএস নেতা]

এ প্রসঙ্গে তাঁরা ২০১৮ সালে চিনের সংবাদপত্র পিপলস ডেলি চায়নার একটি প্রতিবেদনের কথা তুলে ধরেন। যেখানে বলা হয়েছিল, ‘চিনের ভাইরোলজি ইন্সটিটিউট ইবোলার চেয়ে ভয়ংকর এক জীবাণু নিয়ে গবেষণা করছে। মজাদার বিষয় হল, ৩০ মিলিয়ন ডলার খরচ করে বানানো ওই প্রতিষ্ঠানটি বণ্যপ্রাণী বাজার থেকে মাত্র দশ মাইল দূরে রয়েছে।’ আবার অসমর্থিত সূত্রের খবর অনুযায়ী, মারণ জীবাণুতে প্রথম আক্রান্ত হয়েছিলেন ইউহানের ওই পরীক্ষাগারের বিজ্ঞানীরা। পরে বাইরে ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে ‘ডেইলি মেল’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কোবরা কমিশনের এক সদস্য জানান, ইউহানের গবেষণাগারে যে এই জীবাণু তারি হয়েছিল, সেই সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

[আরও পড়ুন : মহামারিতেও অক্লান্ত এয়ার ইন্ডিয়া, পাইলটদের নিরলস পরিশ্রমকে কুর্ণিশ জানাল পাকিস্তান]

ব্রিটেনের এই অভিযোগের তীব্র নিন্দা করেছেন চিনা দূত জেং রং। তাঁর কথায়, “বিশ্বেব স্বাস্থ্যের সুরক্ষা নিয়ে চিন চিন্তিত। তাদের স্বার্থে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছে। চিন বিশ্বের সমস্ত দেশকে এই মহামারি মোকাবিলায় সাহায্য করছে। কিন্তু সেই চেষ্টাকে অপমান করা হল। চিনেই যদি এই ভাইরাস তৈরি হত, তাহলে সেখানে এত মানুষকে মরতে হত না।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement