২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জনগণের জন্য কাজের হাজার ফিরিস্তি, রাজনৈতিক তর্কাতর্কি – এসব টানা কতক্ষণই বা আর ভাল লাগে? মাঝেমধ্যে তো ব্রেক চাই। একটু নিজের মনের কাছে থাকার সুযোগ। যদি কড়া নিয়মকানুনের মধ্যে থাকতে থাকতে এমন ফুরসতের সুযোগ না মেলে, তাহলে? তাহলে তো নিজের জন্য ব্যবস্থা নিজেকেই করে নিতে হবে। তাইই করলেন ইটালির সাংসদ ফ্লাভিও ডি ম্যুরো। সকলকে চমকে দিয়ে তিনি সংসদের অধিবেশন চলাকালীনই বিবাহ প্রস্তাব দিয়ে বসলেন পছন্দের পাত্রীটিকে। তিনিও আবার সংসদেরই সদস্য। নজিরবিহীন আচরণে আইনসভার নিয়ম ভেঙেই তিনি উড়িয়ে দিলেন প্রেমের জয়ধ্বনি।
সম্প্রতি ভয়াবহ ভূমিকম্পের মুখ থেকে ফিরেছে ইটালি। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অসীম। কীভাবে তা পূরণ করে নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানো যায়, সেই গুরুত্বপূর্ণ আলোচনাই চলছিল সংসদে। সবাই নিজেদের মতামত দিচ্ছিলেন। ঘরহারা মানুষজনের পুনর্বাসনের হিসেবনিকেশ দিচ্ছিলেন। বিপর্যয় মোকাবিলায় নানা পথ খুঁজে বের করছিলেন। কিন্তু বছর তেত্রিশের সাংসদ ফ্লাভিও ডি ম্যুরোর এদিকে কোনও মন নেই। তিনি কিছুটা উদাসীন। কারণটা কী? আইনসভার তরুণ সদস্যের কাছ থেকে তখন আরও উদ্যমী, আরও নতুন কিছু আশা করছিলেন অন্যান্য সদস্যরা। এমনকী স্পিকারও। কিন্তু এতজনের আশাভঙ্গ করে এ কী বলে উঠলেন তিনি!

[আরও পড়ুন: আমেরিকায় গাড়ির ধাক্কায় মৃত দুই ভারতীয় পড়ুয়া]

ফ্লাভিও আলোচনার মাঝে তাল কিছুটা কেটেই বলেন, ‘সংসদে প্রতিদিন আমরা রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে বেশি আলোচনা করে থাকি। বিতর্কও হয় সংসদের মধ্যে। কিন্তু আমাদের যাঁরা ভালবাসেন, তাঁদের সবসময় উপেক্ষা করে যাই।” তারপরই হঠাৎ এক মহিলার দিকে তাকিয়ে ফ্লাভিও বলে ওঠেন, “এটা আমার কাছে একটা বিশেষ দিন। এলিসা, তুমি কী আমাকে বিয়ে করবে?” এলিসা সংসদের এক সদস্য। তাঁকেই এই প্রস্তাব দিলেন ফ্লাভিও। শুধু এখানেই থেমে থাকেননি তিনি। নিজের ডেস্ক থেকে একটি আংটি বের করে নিয়ে এলিসাকে পরাতে যান।

flavio
ভূমিকম্প, জনগণের কাজ, আলোচনা – এসব ভুলে তখন সংসদের মতো গুরুত্বপূর্ণ কক্ষে তখন অকাল বসন্ত! প্রেমের জোয়ারে শুধু ফ্লাভিও-এলিসাই নন, যেন হারিয়ে গিয়েছেন সকলে।সম্পূর্ণ ভিন্ন এক পরিবেশের প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ফ্লাভিওকে সকলে করতালি দিয়ে অভিনন্দন জানান। স্পিকারও বাদ যাননি। তাঁর আনন্দে সহকর্মীরা শামিল হন। তাঁর কাজে সমর্থন করলেও, স্পিকার তাঁকে সতর্ক করে দেন যে সংসদ বিয়ের প্রস্তাব দেওয়ার জন্য সঠিক স্থান নয়। সে কথা তো জানেন ফ্লাভিও নিজেও। কিন্তু মন কি আর মেনেছে তাঁর? মানেনি। তাই তো ইটালির সংসদ কক্ষ ক্ষণিকের জন্য হয়ে উঠল কুঞ্জবন।

[আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার ঘোলা জলে মাছ ধরতে তৎপর পাকিস্তান, উদ্বিগ্ন নয়াদিল্লি]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং