২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ঢাকার পল্লবী থানায় বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করল ISIS

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 30, 2020 11:56 am|    Updated: July 30, 2020 11:58 am

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: দিনভর জল্পনার শেষে রাতে এসে ঢাকার পল্লবী থানায় বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করল আইএসআইএস (ISIS)। জানাল তারাই বুধবার ভোরে থানার ভিতর বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। অনলাইনে জঙ্গি কার্যক্রম পর্যবেক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান সাইট ইনটেলিজেন্স গ্রুপ বুধবার রাতে তাদের ওয়েবসাইটে এই তথ্য জানায়। যদিও বাংলাদেশের পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আইএসআইএসের দায় স্বীকারের বিষয়টি ভিত্তিহীন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (DMP) ডিসি (মিডিয়া) ওয়ালিদ হোসেন বলেন, পল্লবী থানায় আসামি ধরে এনেছে পুলিশ। আর দায় স্বীকারের কথা জানিয়ে বিবৃতি দিচ্ছে সাইট ইন্টিলিজেন্স! এর কোনও ভিত্তি নেই। পল্লবীর ঘটনার সঙ্গে জঙ্গিদের যুক্ত থাকাও কোন তথ্য মেলেনি। পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (CTTC) ইউনিটের ডিসি আবদুল মান্নান বলেন, আইএসের এই দায় স্বীকার পুরোপুরি ভিত্তিহীন। অতীতেও এই ধরনের দায় স্বীকারের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার ভোরে পল্লবী থানার পুলিশ তিন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে। থানায় আনার পর তাদের কাছে থাকা একটি ডিভাইস বিস্ফোরিত হয়। এতে চার পুলিশ-সহ পাঁচ জন আহত হন।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে থানার ভিতরেই বিস্ফোরণ, আরও জোরাল জঙ্গি হামলার আশঙ্কা]

গত সপ্তাহে পবিত্র ধর্মীয় উৎসব ইদুল আজহার আগে সম্ভাব্য জঙ্গি হামলার শঙ্কা করেছিল পুলিশ। এজন্য পুলিশের সদর দপ্তর থেকে বিভিন্ন ইউনিটকে সতর্ক করা হয়। ঢাকার গুলশানের কূটনীতিবিদদের পাড়ায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। কেননা বছর তিনেক আগে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় বিদেশিদের টার্গেট করেই হামলা চালায় আইএস ক্যাডাররা। এতে মারাও যান অনেকে। আবার বছর পাঁচেক আগে কিশোরগঞ্জ জেলার শোলাকিয়া ইদের জামাতে জঙ্গিরা হামলা চালিয়ে বেশ কয়েকজনের জীবনহানি ঘটায়। আগের কাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক ছিল। পুলিশের কাছে খবর ছিল, বাংলাদেশকে ফের রক্তাক্ত করার ছক কষছে জঙ্গিরা। জেহাদিদের নিশানায় রয়েছে বিমানবন্দর, নিরাপত্তারক্ষীরা, বিদেশি দূতাবাস ও ধর্মীয় স্থান। এমন সতর্কবার্তার মধ্যে বাংলাদেশে ইদ উল-আজহা পালিত হবে পয়লা আগস্ট।

[আরও পড়ুন: করোনার বলি বাংলাদেশের সাংসদ, পরিস্থিতি সামলাতে টাস্ক ফোর্স গঠন হাসিনার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement