BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

থামছে না করোনার মৃত্যুমিছিল, মার্কিন মুলুকে মৃত ১২২ বাংলাদেশি

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 13, 2020 4:28 pm|    Updated: April 13, 2020 4:28 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: করোনা ভাইরাসের দাপটে বিপর্যস্ত আমেরিকা। কিছুতেই থামছে না এই মারণ রোগের মৃত্যুমিছিল। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে নিউ ইয়র্ক শহর।মহামারির প্রকোপে নাজেহাল প্রবাসী বাংলাদেশিরাও। সে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ১২২ বাংলাদেশি নাগরিক। 

[আরও পড়ুন: খাবার নেই বাংলাদেশে, জামালপুরে ট্রাক আটকে ত্রাণসামগ্রী লুট]

আমেরিকায় কমপক্ষে আরও তিন শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি করোনা ভারাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের বেশিরভাগই নিউ ইয়র্কের বাসিন্দা। শনিবার নিউ ইয়র্ক শহরেই করোনা ভাইরাসে দুই মহিলা-সহ সাত বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। তারা হলেন- পুলিশের ক্যাপ্টেন খন্দকার আবদুল্লার বাবা খন্দকার সাদেক, নিউ ইয়র্ক ট্রাফিক পুলিশের সদস্য জয়দেব সরকার (৫৫), শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন আধিকারিক খন্দকার মোসাদ্দেক আলি, আসাদুজ্জামান লালা, দেওয়ান আফজাল চৌধুরি, শারমীন আহমেদ চৌধুরি নীলা (৫২), ষাটোর্ধ্ব আজিজুন্নেসা। নিউ ইয়র্ক সিটির পাশের শহর লং আইল্যান্ডের বাসিন্দা সিলেটের একটি চা বাগানের প্রাক্তন জেনারেল ম্যানেজার এ জামান (৭০) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। একই দিন নিউ ইয়র্কের বাইরে মেরিল্যান্ডে প্রথম করোনায় মারা যান এক বাংলাদেশি চিকিৎসক। তাঁর নাম ডা. আব্দুল মান্নান (৮০)। এদিকে নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশিদের নতুন বসতি আপস্টেটের বাফেলো সিটিতে করোনা আক্রান্ত দু’জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে একজন স্থানীয় মসজিদে তবলিঘি জামাতের সঙ্গে নামাজ পড়তে এসে আক্রান্ত হন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

উল্লেখ্য, মৃত্যুর সংখ্যায় ইটালিকে ছাপিয়ে গিয়েছে আমেরিকা। ওই দেশে মোট মৃতের সংখ্যা ২০ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। এতদিন এই ভয়াবহ রেকর্ড ছিল ইটালির। এবার ট্রাম্পের দেশে বিশ্বের সর্বাধিক মানুষের মৃত্যুর পরিসংখ্যান উঠে এসেছে। বিশ্বের সর্ব শক্তিধর দেশ এখন মারণ ভাইরাসের হত্যালীলার সামনে নতজানু। মৃত্যুপুরী হয়ে উঠেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৩৪, আক্রান্ত ৬২১]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement