৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বরিশালের কবি হেনরি স্বপনকে গ্রেপ্তারের রেশ এখনও কাটেনি, তার আগেই লেখক তথা আইনজীবী ইমতিয়াজ মাহমুদকে আটক করল পুলিশ। তথ্য-প্রযুক্তি ও যোগাযোগ আইনে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ এদিনই তাঁকে আদালতে পেশ করেছে পুলিশ৷

[ আরও পড়ুন: অবশেষে আর অপু হয়ে ওঠা হল না আরিফিন শুভর, বাদ সাধল ভিসা ]

এবিষয়ে লেখক ইমতিয়াজ মাহমুদের ভাই পারভেজ মাহমুদ জানান, এদিন পেশাগত কাজে আদালতে যাচ্ছিলেন পারভেজ মাহমুদ। সেই সময় বনানী থানা থেকে ফোন করে তাঁকে ডাকা হয়৷ এবং থানায় যেতে বলা হয়। এরপর সেখানে তাঁকে আটক করা হয়৷ জানা গিয়েছে, এদিনই তাঁকে আদালতে পেশ করেছে পুলিশ। তবে কি কারণে তাঁর দাদাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সেবিষয়ে কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি পারভেজ মাহমুদ৷ তবে অনুমান করেন দু’বছর আগে খাগড়াছড়িতে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে যে মামলা হয়েছিল, সেই মামলাতেই তাঁকে আবারও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি জানান, ২০১৭-র ওই মামলায় ইমতিয়াজ মাহমুদ জামিনে ছিলেন। বনানী থানার পুলিশ জানিয়েছে, ইমতিয়াজ মাহমুদের নামে একটি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ছিল৷ এবং সে কারণেই তাঁকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ, বাংলাদেশে গ্রেপ্তার কবি হেনরি স্বপন ]

কবি ও লেখক ইমতিয়াজ মাহমুদ লেখালেখির পাশাপাশি পাহাড়ি ও সংখ্যালঘুদের অধিকার নিয়ে লড়াই করতেন। দু’বছর আগে নিজের ফেসবুকে পার্বত্য চট্টগ্রামকে নিয়ে একটি পোস্ট করেন তিনি৷ যাকে কেন্দ্র করে শফিকুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি মাহমুদের বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি ও যোগাযোগ আইনে খাগড়াছড়িতে মামলা দায়ের করে করেন৷ ওই মামলায় বলা হয়, ‘‘ইমতিয়াজ মাহমুদের মিথ্যা লেখাসমূহ পড়ে ও দেখে, যাঁরা লাইক ও কমেন্ট করে উক্ত লেখাকে সমর্থন করেছেন, তাঁরা দেশের প্রচলিত আইনে অপরাধজনক কাজ করেছে।’’ একটি ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি বরিশাল থেকে কবি হেনরি স্বপনকে আটক করেছে পুলিশ৷ গত কয়েকদিন ধরেই যার তীব্র সমালোচনা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং