১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজনৈতিক মহলে আলোড়ন ফেলে বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। আমেরিকার দিকে আঙুল তুলে তিনি বলেন, ‘মার্কিন দূতাবাস জামাত-যুদ্ধাপরাধীদের ঘাঁটি’।

মঙ্গলবার ঢাকার একটি হোটেলে যুব প্রজন্মের সঙ্গে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল আওয়ামি লিগ। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাসিনার তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। ওই অনুষ্ঠানে তিনি দাবি করেন, বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস। জয় আরও বলেন, ‘ ‘অর্থনৈতিক দিক থেকে ক্রমশ এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। কিন্তু ঢাকায় অবস্থিত কিছু দূতাবাস, বিশেষত মার্কিন দূতাবাস সেই অগ্রগতি ব্যহত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তারা চায় না বাংলাদেশে একটি শক্তিশালী সরকার থাকুক। তারা চায় একটি দুর্বল সরকার। এমন একটি সরকার যারা তাদের নির্দেশ অনুযায়ী চলবে।’ এরপর যুদ্ধাপরাধী এবং জামাতের সঙ্গে মার্কিন দূতাবাসের নিবিড় যোগাযোগ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এই আওয়ামি লিগ নেতা। বলেন, ‘যখনই যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের কোনও অনুষ্ঠানে গিয়েছি তখনই জামাতের নেতা ও যুদ্ধাপরাধীদের সেখানে দেখেছি। তারা সব সময় তাদের আমন্ত্রণ করবে। যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস জামাত ও যুদ্ধাপরাধীদের ঘাঁটি হয়ে উঠেছে। এবং তাদের সঙ্গে মিলে সব সময় ষড়যন্ত্র করে।’

উল্লেখ্য, আগেও সন্ত্রাসে মদত দেওয়ার অভিযোগে পাক কুটনীতিকদের বিতাড়িত করছে বাংলাদেশ। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন সিআইএ ও আইএসআই-এর মধ্যে দহরম মহরম কোনও কালেই ভাল চোখে দেখেনি বাংলাদেশ। খালেদা জিয়ার আমলে পাকপন্থীর কিছুটা হালে পানি পেলেও, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর থেকেই তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হচ্ছে। eই অপরাধীদের মধ্যে অনেকেই আবার আমেরিকার ঘনিষ্ঠ। ফলে স্বাভাবিকভাবে মার্কিন কুটনীতিকদের বিরুদ্ধে কিছুটা ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন জয়। তবে তাঁর এই মন্তব্য ঢাকায় ক্ষমতার অলিন্দে রীতিমতো শরগোল ফেলে দিয়েছে।

[আরও পড়ুন: আসছে দীপালি উৎসব, লাখো মোমে আলোকিত হয়ে উঠবে বরিশাল মহাশ্মশান]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং