BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

তৃণমূলের বৈঠকে গরহাজির পুরুলিয়ার চার বিধায়ক, দলের অন্দরে তুমুল জল্পনা

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 24, 2020 9:14 pm|    Updated: December 24, 2020 9:14 pm

4 MLA do not attend TMC meeting in Purulia | Sangbad Pratidin

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: তৃণমূলের (TMC) সাধারণ সভায় গরহাজির চার বিধায়ক। দলীয় সভায় তাঁদের অনুপস্থিতি ঘিরে ‘রাঙামাটির দেশে’র রাজনীতিতে টানাপোড়েন তুঙ্গে। যদিও চারজনই নানাকাজে ব্যস্ত থাকায় সভায় আসতে পারেননি বলে জানিয়েছেন। তবু জল্পনা থামছে না।

পুরুলিয়ায় তৃণমূলের ‘গাঁয়ে চলো’ অভিযান শুরু হচ্ছে। চলবে ভোট পর্যন্ত। বৃহস্পতিবার পুরুলিয়া শহরের হরিপদ সাহিত্য মন্দিরে জেলা তৃণমূলের সাধারণ সভা থেকে দলীয় নেতৃত্ব একথা ঘোষণা করে। সেখানেই গরহাজির ছিলেন রঘুনাথপুর বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি, পাড়ার বিধায়ক উমাপদ বাউরি, কাশিপুরের বিধায়ক স্বপন বেলথরিয়া ও বান্দোয়ানের বিধায়ক রাজীবলোচন সরেন। তার পর থেকেই জেলা রাজনীতি সরগরম।

[আরও পড়ুন :‘দিদির সঙ্গে আছি’, সব জল্পনায় জল ঢেলে ফেসবুকে অকপট জিতেন্দ্র তিওয়ারি]

পুরুলিয়া জেলা তৃণমূলের এই গুরুত্বপূর্ণ সভায় চার বিধায়ক অনুপস্থিত থাকায় শুধু দলের অভ্যন্তরে নয় জেলার রাজনৈতিক মহলে জল্পনা চলছে। তবে বান্দোয়ানের বিধায়ক রাজীব লোচন সোরেন বলেন, “একটি প্রশাসনিক কাজে আমি কলকাতায় এসেছি। জেলা সভাপতিকে আগেভাগেই তা জানিয়েছি।” কাশিপুরের বিধায়ক স্বপন বেলথরিয়া পুরুলিয়া শহরে থাকলেও বৈঠকে যাননি। তাঁর কথায়,”বহুদিন আমার পুরুলিয়া যাওয়া হয়নি। তাই অনেকগুলো কাজ বাকি পড়েছিল। এদিন আমি জেলাশাসক ও জেলা পরিষদ কার্যালয়ে সেই কাজগুলো করেছি।” পাড়ার বিধায়ক উমাপদ বাউরি বলেন, “স্থানীয়স্তরে একটি বৈঠক থাকার কারণে তিনি সাধারণ সভায় যেতে পারেননি।” রঘুনাথপুর বিধায়ক পূর্ণচন্দ্র বাউরি জানান, “আমার দলের এক কর্মী মারা গিয়েছেন। তাই সেই কাজে ব্যস্ত ছিলাম। আমার মত ওই এলাকার অনেক কর্মী এদিন ওই বৈঠকে যেতে পারেননি। জেলা সভাপতিকে তা জানিয়েছি।” জেলা সভাপতি গুরুপদ টুডু বলেন, “ওই চার বিধায়কই আমাকে আগে জানিয়েছেন তাঁরা সাধারণ সভায় আসতে পারবেন না। ফলে কোথাও কোন জল্পনা নেই l” 

[আরও পড়ুন :‘একুশে আপনি দ্বিতীয়ই হবেন’, কাঁথির সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ শুভেন্দুর]

এদিন ওই বৈঠক থেকে তৃণমূল প্রতিষ্ঠা দিবস-সহ জানুয়ারি মাসে ঘোষিত কর্মসূচিগুলি গ্রামের মানুষজনকে নিয়ে সাড়ম্বরে পালন করার কথা জানানো হয়। দলের পুরুলিয়া জেলা সভাপতি তথা পুরুলিয়া জেলা পরিষদের শিক্ষা-সংস্কৃতি-তথ্য-ক্রীড়া স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ গুরুপদ টুডু বলেন, “আমাদের জেলায় বঙ্গভূমি যাত্রার সুফল ব্যাপকভাবে পেয়েছি। তাই আমাদের ‘গাঁয়ে চলো’ কর্মসূচি শুরু হচ্ছে এবং এই কর্মসূচি একেবারে ভোট পর্যন্ত চলবে।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে