১৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: বাড়িতে কার্তিক ঠাকুর ফেলা নিয়ে বচসার জের। গৃহকর্তাকে গাছে বেঁধে মারধর ও বিষ খাইয়ে খুনের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশী যুবকদের বিরুদ্ধে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীর কুমড়োখালি গ্রামে। ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বাসন্তী থানার পুলিশ।

কার্তিক পুজোর আগে প্রতিবেশী বা বন্ধু-বান্ধবের বাড়ির সামনে প্রতিমা ফেলে রেখে আসার চল বহু দিনের। এবার সেই কার্তিক প্রতিমা ফেলাকে কেন্দ্র করেই উত্তপ্ত হয়ে উঠল বাসন্তী। জানা গিয়েছে, রবিবার ভোররাতে এলাকার কিছু যুবক ফণি সাঁপুই নামে বছর ৪৮-এর ব্যক্তির বাড়ির সামনে কার্তিক প্রতিমা ফেলে যায়। যারা প্রতিমা ফেলে গিয়েছে ঠাকুরের উপর লেখা তাঁদের নাম দেখে ওই ব্যক্তি মদ্যপ অবস্থায় সকলের বাড়িতে চড়াও হয়। কেন তাঁরা প্রতিমা ফেলে রেখে এসেছে এই প্রশ্ন তুলে সকলকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করেন ওই ব্যক্তি। এরপর বাড়ি ফিরে পুজোর আয়োজন করে ফণি সাঁপুই।

[আরও পড়ুন: মোবাইল ছিনতাইকারীকে ধরতে গিয়ে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ, নৈহাটিতে গুরুতর জখম যুবক]

এই ঘটনার পর যে যুবকদের গালিগালাজ করেছিলেন ফণি সাঁপুই,  তাঁদেরকেই পুজোয় নিমন্ত্রণ করতে যান। সেই সময়ই ওই যুবকেরা ফণির উপর চড়াও হয়। গাছে বেঁধে রেখে বেধড়ক মারধর করা হয় ওই ব্যক্তিকে। অভিযোগ, মারধরের পর জোর করে ফণির মুখে বিষ ঢেলে দেয় অভিযুক্তরা। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল ওই ব্যাক্তির। মঙ্গলবার সকালে মৃত্যু হয় তাঁর। খবর পেয়েই দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে ক্যানিং থানার পুলিশ।

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, “এরকম একটা ঘটনা ঘটেছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে।” অভিযুক্তদের যথাযথ শাস্তি দেওয়া হবে, এই আশ্বাসও দেন তদন্তকারীরা। তবে আদৌ কার্তিক প্রতিমা ফেলাকে কেন্দ্র করেই এই খুনের ঘটনা? নাকি এর পিছনে অন্য কোনও রহস্য রয়েছে, তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 

[আরও পড়ুন: সময় মতো স্কুলে না আসার ‘শাস্তি’, প্রধান শিক্ষককে বিদ্যুতের খুঁটিতে বেঁধে রাখল গ্রামবাসীরা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং