৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুব্রত যশ, আরামবাগ: ক্লাস চলাকালীন স্কুলে ঢুকে এক পড়ুয়াকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। বুধবার দুপুরে ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হুগলির পুরশুড়া থানার সোদপুর উচ্চ বিদ্যালয় চত্বর। ঘটনার প্রতিবাদে দীর্ঘক্ষণ আরামবাগ-তারকেশ্বর রাজ্যসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় কিশোরের পরিবাবের সদস্যরা। পরে পুলিশের আশ্বাসে স্বাভাবিক হয় পরিস্থিতি। ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাকে।

[আরও পড়ুন:অস্ত্র ঠেকিয়ে পুরোহিতের স্ত্রীকে ধর্ষণ, মহরম বলে অভিযোগ নিতে টালবাহানা পুলিশের]

জানা গিয়েছে, অন্যান্যদিনের মতোই বুধবারও নির্দিষ্ট সময়ে ক্লাস শুরু হয় পুরশুড়ার সোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। অভিযোগ, সেই সময় আচমকা তৃণমূল নেতা শেখ আলা উদ্দিন মির্জা ওই স্কুলে ঢুকে পড়ে। নবম শ্রেণির ছাত্র রিনজু মালিককে ডেকে পাঠায় ওই তৃণমূল নেতা। অভিযোগ, স্কুলের মধ্যে শিক্ষকদের সামনেই ওই তৃণমূল নেতা রিনজুকে বেধড়ক মারধর করে। কেউ তাতে কোনও প্রতিবাদও করেনি। এই ঘটনা জানতে পেরে কিছুক্ষণের মধ্যেই স্কুলে পৌঁছয় আক্রান্ত পড়ুয়ার অভিভাবকরা। অভিভাবকদের শাস্তির দাবি তুলে স্কুলের গেটের বাইরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তারা। বিক্ষোভে শামিল হয় পড়ুয়ারা। 

hgl-2
চলছে বিক্ষোভ

এরপর আরামবাগ-তারকেশ্বর রাজ্যসড়কে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে তারা। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে যান আরামবাগের এসডিপিও। তাঁদের সামনেই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের দাবি জানান আন্দোলনকারীরা। দীর্ঘক্ষণ পর পুলিশি আশ্বাসে ওঠে অবরোধ। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে অভিযুক্ত শেখ আলা উদ্দিন মির্জাকে। যদিও এদিন গোটা ঘটনাটি অস্বীকার করেছেন সোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিনি জানিয়েছেন স্কুলের ভিতর কোনও ঘটনা ঘটেনি। মঙ্গলবার স্কুল শেষের পর কিছু ঘটে থাকলে তা জানা নেই। এ বিষয়ে এখনও তৃণমূল নেতৃত্বের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে কেনও ওই ব্যক্তি স্কুলে ঢুকে আচমকা ওই পড়ুয়াকে আক্রমণ করল সে বিষয়ে এখনও কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। 

[আরও পড়ুন: অবশেষে স্বস্তির বৃ্ষ্টি, আগামী ৪৮ ঘণ্টা রাজ্যজুড়ে ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং