BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মাছ ধরার কোঁচ দিয়ে সারমেয় ‘খুন’, পুলিশের জালে হুগলির যুবক

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 18, 2020 8:34 pm|    Updated: August 18, 2020 8:34 pm

A dog allegedly killed by a youth in Hooghly

ছবি: প্রতীকী

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: ফের নৃশংসতায় নজির গড়ল হুগলি (Hooghly)। কার্যত কোনও কারণ ছাড়াই প্রতিবেশীর সারমেয়কে হত্যার অভিযোগ উঠল যুবকের বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যেই অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে চুঁচুড়া থানার কারবালা রোডের জীবন পালের বাগান এলাকায়।

জানা গিয়েছে,  কারবালা রোডের বাসিন্দা ঝুমা পালের সারমেয় গুট্টস এলাকার সকলেরই প্রিয়। রবিবার রাতে কুকুরটি স্থানীয় স্বপন দাসের বাড়ির সামনে ঘোরাঘুরি করছিল। অভিযোগ, সেই সময় বিনা কারণেই স্বপন ঘর থেকে বেরিয়ে গুট্টুসের পেটে মাছ ধরার কোঁচ ঢুকিয়ে দেয়। যন্ত্রণায় ছটফট করতে সারমেয়টি বাড়ি ফিরে যায়। সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসা শুরু হয় তার। তবে তাতেও কোনও লাভ হয়নি। দেড় দিন লড়াইয়ের পর মঙ্গলবার মারা যায় কুকুরটি।

dog-2
এই অস্ত্র দিয়েই আক্রমণ করা হয় সারমেয়টিকে।

[আরও পড়ুন: ডাক্তারদের উপর হামলার ঘটনায় কড়া রাজ্য, তৈরি হল গ্রিভান্স সেল, নজর রাখবে স্বরাষ্ট্রদপ্তর]

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরই অভিযুক্ত স্বপনকে আটক করে পুলিশ। তদন্তকারীদের দাবি, জেরায় অপরাধ স্বীকারও করেছে অভিযুক্ত। তবে কেন এই নৃশংসতা, তার কোনও উত্তর দিতে পারেনি সে। কুকুরটির মৃত্যুর পর অভিযুক্তের কঠোরতম শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন স্থানীয়রা। প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে কার্যত একই ঘটনা ঘটেছিল হুগলির (Hoogly) পোলবায় (Polba)। আমদাবাদ গ্রামের এক যুবক একটি সারমেয়টির মুখে রুটি দেখতে পান। তার মনে সন্দেহ জাগে যে, ওই রুটিটি তার বাড়ি থেকেই চুরি করেছে ওই কুকুরটি। এতেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে সে। ঘর থেকে সাঁড়াশি নিয়ে এসে ঝাঁপিয়ে পরে প্রাণীটির উপর। এরপর সেটি কুকুরটি পেটে ঢুকিয়ে দেয় অভিযুক্ত। মুহূর্ত শুরু হয় রক্তপাত। যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকে কুকুরটি। কিছুক্ষণের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। 

[আরও পড়ুন: এবার সুন্দরবনের প্রত্যন্ত দ্বীপের করোনা রোগীদের জন্য চালু হল ‘ওয়াটার অ্যাম্বুল্যান্স’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে