১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘শুভেন্দু দলে ছিল, আছে’, টানাপোড়েনের মাঝেই মন্তব্য অনুব্রত মণ্ডলের

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: November 18, 2020 8:11 pm|    Updated: November 18, 2020 8:11 pm

An Images

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: “শুভেন্দু দলে ছিল, আছে”, টানাপোড়েনের মাঝে আহমেদপুরের সভা থেকে এমনই মন্তব্য করলেন বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mandal)। ফের বললেন, পতাকা ছাড়া সভা করাটা কোনও বিষয়ই নয়। যদিও শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়লেও তা কোনও ফ্যাক্টর হবে না বলেই ইঙ্গিতে বুঝিয়েছেন বীরভূমের দাপুটে তৃণমূল নেতা। আক্রমণ করেছেন রাজ্য বিজেপির সভাপতিকেও।

বুধবার বীরভূমের (Birbhum) আহমেদপুরে তৃণমূলের বুথ ভিত্তিক কর্মিসভার আয়োজন করা হয়েছিল। অনুব্রত মণ্ডল ছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ, বোলপুরের সাংসদ অসিত মাল-সহ স্থানীয় নেতৃত্বরা। সেখানেই দিলীপ ঘোষের বাংলাকে গুজরাট বানিয়ে দেওয়া মন্তব্য প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে অনুব্রত বলেন, “বাংলায় বাইরে থেকে হিন্দিভাষী লোক এনে কোনও লাভ হবে না। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিবেকানন্দ, রামকৃষ্ণ, নজরুলের বাংলায় হিন্দিভাষীরা শাসন করবে তা এখানকার মানুষেরা মেনে নেবে না। দিলীপ ঘোষ বলেছে বাংলাকে গুজরাট বানাবো, মানে এখানে দাঙ্গা হবে, মানুষ মারা যাবে। এখানে তা করা যাবে না। বাংলার মানুষ এসব আটকে দেবে। গুজরাটের লোক এসে এখানে শাসন করবে তা হতে দেওয়া যাবে না। বাংলার মাটিকে গুজরাটের লোকদের হাতে তুলে দিতে কেউ চাইবে? বিজেপি কী চাইছে মানুষ তা বুঝে গিয়েছে।”

[আরও পড়ুন : ‘সরকারপক্ষের সমর্থক না হলেই হাতকড়া পরবে’, রাজ্য প্রশাসনের বিরুদ্ধে ফের সরব রাজ্যপাল]

এদিন ফের জল্পনা বাড়িয়ে শুভেন্দু অধিকারীকে সমর্থন করেন তিনি। দলের সঙ্গে কোন্দল নয়, বরং নতুন প্ল্যানে দলের হয়েই এভাবে শুভেন্দু কাজ করছে বলে দাবি করেন তিনি। বলেন, “আমিও পতকা ছাড়া রাজনীতি করি। অনেক মিটিং আমি পতকা ছাড়াই করি। এটা কোনও ব্যাপার নয়।” যদি সত্যিই দল ছাড়েন শুভেন্দু?  এ প্রশ্নের উত্তরে অনুব্রত বলেন, সেটা পরে দেখা যাবে। দল ছেড়ে তো অনেকেই গিয়েছে কোনও ফ্যাক্টর হয়েছে?

[আরও পড়ুন: শুধু করোনা নয়, এই ৪ রোগে আক্রান্ত হলেও কোয়ারেন্টাইনের জন্য ছুটি পাবে সরকারি কর্মীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement