৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নিউ নর্মালে কী কী বিধি মেনে চলবে লোকাল ট্রেন? রেলের সঙ্গে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য

Published by: Paramita Paul |    Posted: August 31, 2020 5:22 pm|    Updated: August 31, 2020 5:51 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: হাওড়া, শিয়ালদহ ডিভিশনে লোকাল ট্রেন (Local Train) কীভাবে চলবে, বিষয়টি পুরোপুরি নির্ভর করছে রাজ্যের উপর। এজন্য রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠক করতে চলেছেন রেলকর্তারা। বৈঠকের মূল বিষয়টি রেলবোর্ডের (Rail Board) কাছে পাঠাবে পূর্ব ও দক্ষিণ পূর্ব রেল। তারপরই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক (Home Ministry) থেকে ছাড়পত্র আদায়ের চেষ্টা করবে বোর্ড।

এ প্রসঙ্গে সোমবার শিয়ালদহের ডিআরএম (DRM) এসপি সিং বলেন, “খুব শীঘ্রই রেল ও রাজ্য বৈঠকে বসবে। রাজ্য সরকার লোকাল ট্রেন চলাচলের নিয়মকানুন বেঁধে দেবে। কতগুলি ট্রেন চলবে, সেই ট্রেনে কোন শ্রেণির যাত্রী উঠবেন, কোন স্টেশনে কত ট্রেন দাঁড়াবে। কোথায় গালপিং দেওয়া হবে, কখন ট্রেন কতগুলি চলবে, ক’টা থেকে ক’টা পর্যন্ত ট্রেন চলবে, সে সবই ঠিক করে দেবে রাজ্য। রাজ্যের গাইডলাইনস পাঠানো হবে বোর্ডে।” বোর্ড সেই বিষয়টি জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছ থেকে ছাড়পত্র নেবে জানিয়েছেন তিনি।

একই সুরে হাওড়ার ডিআরএম ইশাক খান বলেন, “ট্রেন চলাচলের রূপরেখা তৈরি করবে রাজ্য। কারণ, বর্তমান পরিস্থিতিতে খুব কম সংখ্যক ট্রেন চলবে। ভিড় নিয়ন্ত্রণ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সেই বিষয়টার গাইডলাইন দেবে রাজ্য।” তিনি জানিয়েছেন, ডিভিশনে অসংখ্য ট্রেন, যাত্রীও অগুনতি। কিন্তু প্রথমে সব যাত্রীকে নিয়ে চলাচল হবে না। রাজ্য বলবে, প্রথমবারের কারা ট্রেন ছাড়ার সুযোগ পাবেন, রোডসাইড স্টেশনের কোনদিক দিয়ে যাত্রী স্টেশনে ঢুকবেন ও বেরবেন তা নির্ধারণ করবে জিআরপি। সহযোগিতায় থাকবেন আরপিএফ কর্মীরা। ভিড় নিয়ন্ত্রণ ও আইন শৃঙ্খলার জন্য দায়িত্ব জিআরপিরই।

[আরও পড়ুন : রাজ্যে ‘ওপেন বুক এক্সামে’ সিলমোহর, বাড়িতে বসে বই দেখেই পরীক্ষা কলেজ পড়ুয়াদের]

পাশাপাশি, রেল গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনগুলোতে নিজেদের মতো করে সাজিয়ে নিচ্ছেন। যাকে ইন্টারনাল বিষয় বলে জানিয়েছেন ইশাক খান। যেমন ব্যস্ত স্টেশনগুলোতে কী ভাবে যাত্রীরা চলবেন সে বিষয়টি নিয়ে সাজগোজ চলছে স্টেশনগুলিতে। বসার সিটে দূরত্ব মেপে মার্ক, কম সংখ্যক যাত্রী যাতে দূরত্ব বিধি মেনে স্টেশনে দাঁড়াতে পারে এজন্য দূরত্ব মেনে সার্কেল কাটা হয়েছে। স্বয়ংক্রিয় পানীয় জলের ট্যাপ লাগানো, পা দিয়ে চালনা করার মতো সানিটাইজার মেশিন, থার্মাল গান ব্যাবহার ইত্যাদি থাকছেই। বিভিন্ন স্টেশনে এই সংক্রান্ত বিষয়গুলি ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে। রাজ্যের বিধি জেনেই বোর্ডে জানাবেন সে কথা। এরপর কেন্দ্রের ছাড় নিয়ে চলবে লোকাল ট্রেন। তবে সেপ্টেম্বরের একেবারে প্রথমে লোকাল ট্রেন চলাটা এক প্রকার অস্বাভাবিক। তবে রাজ্য-কেন্দ্র বৈঠক খুব শীঘ্র করা হবে। ফলে খুব বেশি দেরি নয়, চালু হবে লোকাল ট্রেন চলাচল বলে রেল কর্তদের মত।

[আরও পড়ুন : আবাসন নির্মাণের জন্য প্রোমোটারকে হুমকি, ১০ লক্ষ টাকা তোলা চেয়ে গ্রেপ্তার ‘তৃণমূল নেতা’]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement