১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  সোমবার ২৭ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অংশুপ্রতিম পাল, খড়গপুর: অস্ত্র হাতে রাম নবমীতে মিছিল যে হবে, সেই হুঁশিয়ারি আগেই জানিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ তার অন্যথা হল না৷ রাম নবমীর দিন রীতিমতো অস্ত্র হাতে মিছিলে হাঁটতে দেখা গেল তাঁকে৷ সঙ্গে ছিলেন অসংখ্য কর্মী, সমর্থকও৷ এদিকে পূর্ব বর্ধমানের গুসকরা শহরেও রাম নবমী উপলক্ষে অস্ত্র মিছিল করেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

[ আরও পড়ুন: হাত বাঁচাতে চিকিৎসকের পরামর্শেই গ্লাভস, বিতর্কের জবাব মিমির]

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনী লড়াই ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে৷ প্রথম দফার ভোটাভুটিও হয়ে গিয়েছে৷ তাই ভোটের উত্তাপে ফুটছে গোটা রাজ্য৷ এবার মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির হয়ে নির্বাচনে লড়ছেন দিলীপ ঘোষ৷ প্রচারের ব্যস্ততা থাকায় আপাতত মেদিনীপুরেই রয়েছেন তিনি৷ প্রতিদিনই ছোট, বড় জনসভা কিংবা বাড়ি বাড়ি ঘুরে প্রচার করছেন বিজেপির হেভিওয়েট নেতা৷ তবে ভোটের ব্যস্ততা থাকলেও রাম নবমী পালন করতে ভোলেননি গেরুয়া শিবিরের যোদ্ধা৷ শনিবার সকালে খড়গপুরে বর্ণাঢ্য মিছিল করা হয়৷ ওই মিছিলেই অংশ নেন দিলীপ ঘোষ৷ গাড়ি করে তালবাগিচা-সহ বেশ কয়েকটি জায়গা ঘোরে ওই মিছিল৷ দিলীপ ঘোষ ঘুরে দেখেন আখড়াগুলির প্রস্তুতি৷ সেই সময় তাঁর হাতে ছিল গদা এবং তলোয়ার৷ মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের মুখে জয় শ্রীরাম ধ্বনিও  শোনা গিয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: ভোটের মুখে গান্ধীগিরির সুর বীরভূমের তৃণমূল সভাপতির গলায়!]

রাম নবমী নিয়ে গত বছর রাজ্যে বেশ অশান্তি হয়েছে। তাই এ নিয়ে এবার সতর্ক প্রশাসন। তবে অস্ত্র মিছিলের ব্যাপারে অনড় দিলীপ ঘোষ। আগেই তিনি বলেছিলেন, ‘‘রাম নবমী যেভাবে হয় সেভাবেই হবে। মানুষ যেভাবে অস্ত্র হাতে মিছিল করেন সেভাবেই এবার মানুষ মিছিলে হাঁটবেন। দুর্গাপুজো হবে আর হাতিয়ার থাকবে না, এটা হয় না৷’’ দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, ‘‘ভোট এসেছে বলে অস্ত্র মিছিল বন্ধ করে দিতে হবে। কিংবা মহরমের জন্য দুর্গাপুজোর বিসর্জন বন্ধ করে দেবেন দিদি, এসব হবে না। দু’টোই চলা উচিত। প্রশাসনের দেখা উচিত। কেন ভোটের জন্য আমরা আমাদের সাংস্কৃতিক পরম্পরাকে ছেড়ে দেবো? তা হতে পারে না। এভাবে চললে আমরা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাব।’’ নির্বাচনী আবহে রাম নবমীর অস্ত্র মিছিলে অশান্তির আশঙ্কা একেবারেই এড়ানো যাচ্ছে না৷ পর্যাপ্ত পরিমাণ নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ তার জেরে কলকাতা, মেদিনীপুর, আসানসোল-সহ বিভিন্ন জায়গার নিরাপত্তায় বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে৷ তবে কমিশনের এই নির্দেশকেও কটাক্ষ করেছেন দিলীপ ঘোষ৷ তাঁর মন্তব্য, ‘কমিশন আসবে, যাবে৷ কিন্তু রাম তো থাকবেন৷’ যদিও দিলীপের পালটা দিয়েছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ বিজেপি নেতাকে ‘পাগলবাবু’ বলেও কটাক্ষ করেন তিনি৷ পাশাপাশি  এখনও নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধেও ক্ষোভ উগরে দেন তৃণমূল নেতা৷ 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং