৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভাবী জনপ্রতিনিধি, মানুষের জন্য কাজ করবেন৷ প্রচারে বেরিয়ে তাই জনসংযোগই মুখ্য৷ কিন্তু সেখানেও দেখা গিয়েছিল, যাদবপুরের তারকা প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর হাতে গ্লাভস৷ দস্তানায় ঢাকা হাতেই তিনি ছোটদের সঙ্গে করমর্দন করছেন৷ মুহূর্তের মধ্যে সেই ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনার ঝড়ও কম ওঠেনি৷ এবার তারই জবাব দিলেন তারকা প্রার্থী৷ তাঁর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ সরাসরি তুললেন বিজেপির আইটি সেলের বিরুদ্ধে৷

                   [ আরও পড়ুন: গ্লাভস পরে অনুরাগীদের সঙ্গে করমর্দন! নেটদুনিয়ায় ট্রোলড মিমি]

তৃণমূলের প্রার্থীতালিকা ঘোষণা হওয়ার পরদিন থেকেই নতুন প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী নেমে পড়েছিলেন প্রচারে৷ রাজনীতির জগতে এটাই তাঁর প্রথম বড় কাজ৷ তাই সবটা দেখে, বুঝে নিতে সময় লাগবে বলে এক মুহূর্তও দেরি করেননি৷ সেই থেকে টানা চলছে৷ একমাসের কাছাকাছি সময় ধরে প্রচারে কোনও বিরতি দেননি মিমি৷ যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রতিটি এলাকায় তাঁকে দেখতে পাচ্ছেন ভোটাররা৷ এর মধ্যে আবহাওয়াও কিছুটা বদল হয়েছে৷ চৈত্রের খরতাপে পুড়তে হয়েছে রাজ্যবাসীকে৷ প্রার্থীরাও তো বাদ যাননি৷ ঘনিষ্ঠ মহলে মিমি জানিয়েছেন, এই ক’দিন দিনেদুপুরে একটানা প্রচারে বেরিয়ে তাঁর ত্বকের বেশ খানিকটা ক্ষতি হয়েছে৷ ত্বক অত্যন্ত সেনসিটিভ হওয়ায় দু’হাতের খোলা অংশে ব়্যাশ বেরিয়েছে৷ সেইসঙ্গে চামড়া সান বার্নে কুঁচকে গিয়েছে৷ তাই তিনি চিকিৎসকের পরামর্শমতো হাই এসপিএফ যুক্ত ক্রিম ব্যবহার করেছিলেন৷ গত বৃহস্পতিবার সোনারপুরে প্রচারে বেরিয়েও তাঁর হাতে ছিল ক্রিম৷ এরপর ফেরার পথে তিনি হাতের ক্রিম লাগানো অংশটি ঢেকে নেন গ্লাভসে৷ মিমি জানিয়েছেন, সেসময় রাস্তায় কয়েকজন বাচ্চা তাঁকে দেখে উৎফুল্ল হয়ে ওঠে৷ গাড়ি থামিয়ে তাঁর দিকে হাত বাড়িয়ে দেয়৷ ওই অবস্থায় বাচ্চাদের ফেরাতে পারেননি মিমি৷ তাই গ্লাভস পরা অবস্থাতেই তাদের সঙ্গে হাত মেলান৷

                          [ আরও পড়ুন: ‘ভোটে জিতলে গান শোনাব’, প্রচারে বাবুলকে খোঁচা মুনমুনের]

নিজের এই পরিস্থিতির কথা জানিয়েই ক্ষোভ ফেটে পড়েন যাদবপুরে তৃণমূলের তারকা প্রার্থী৷ অভিযোগ করেন, গ্লাভস পরার নেপথ্যের ঘটনা, অসুস্থতার কথা – এসব না জেনে শুধুমাত্র ছবিটিকে ব্যবহার করে তাঁর নামে কুৎসা ছড়িয়েছে বিজেপি৷ এর জন্য তিনি সরাসরি আইটি সেলকে দায়ী করেছেন৷ তাঁর অভিযোগ, এভাবে ভোটের আগে বিরোধী প্রার্থীদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার দায়িত্ব নিয়েছে বিজেপির আইটি সেল৷ তবে এসবের পরও মিমির গলায় আত্মবিশ্বাসের সুর – জনসমর্থন থাকবে তাঁরই সঙ্গে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং