BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘ভোটের পর হিসেব বুঝে নেব’, তৃণমূলকে আক্রমণ করতে গিয়ে ফের বিস্ফোরক দিলীপ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: April 21, 2019 8:01 pm|    Updated: April 21, 2019 8:11 pm

An Images

নন্দন দত্ত, সিউড়ি:  ফের আক্রমণের পথেই হাঁটলেন দিলীপ ঘোষ। দুবরাজপুর থেকে দলীয় কর্মীদের লাঠির বদলা লাঠি হাতে তুলে নেওয়ার নির্দেশ দিলেন মেদিনীপুরের বিজেপি প্রার্থী তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি। বিজেপিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার দাবি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সব হিসেব ভোটের পরেই মিটবে।’ প্রসঙ্গত, শনিবার  বীরভূমের সাঁইথিয়ার সভা থেকে বিজেপিকে নিষিদ্ধ ঘোষণার দাবি জানিয়েছিলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। এদিন তারই জবাব দিলেন দিলীপ ঘোষ৷ তাঁর এই বিতর্কিত মন্তব্য ঘিরে ফের শুরু হয়েছে সমালোচনা৷

[আরও পড়ুন: থানার মধ্যেই হাতাহাতি দুই পরিবারের, আক্রান্ত পুলিশ আধিকারিক-সহ ৪]

শেষ মুহূর্তের প্রচারে ব্যস্ত সব দল। রবিবার বীরভূমের দুবরাজপুরে রোড শো করার কথা ছিল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। কিন্তু কপ্টার বিভ্রাটের কারণে নির্ধারিত সময়ের বেশ অনেকটা দেরিতেই দুবরাজপুর পৌঁছান তিনি। বাতিল হয়ে যায় রোড শো’র পরিকল্পনা। দুবরাজপুরে দলীয় কার্যালয়ের বাইরে দাঁড়িয়ে বেশ কিছুক্ষণ কর্মী, সমর্থকদের সঙ্গে কথা বলেন দিলীপ ঘোষ। কর্মীই শুধু নয়, সেখানে উপস্থিত ছিল বাচ্চারাও। সেখান থেকেই কার্যত পালটা আক্রমণের নির্দেশ দেন বিজেপি নেতা। তিনি বলেন,  ‘দিদির পুলিশকে ভয় পাবেন না। কেউ মারলে, বাধা দিলে, তাঁদেরও আক্রমণ করবেন। বাকিটা দল বুঝে নেবে।’ বিজেপি নেতার এই মন্তব্যকে গিরে শুরু হয়েছে জল্পনা। তৃণমূলকে কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন, ‘এবারও যারা তৃণমূলকে ভোট দেবেন, তাঁরা জানবেন এটাই তাঁদের শেষ ভোট। কারণ, ফের তৃণমূল ক্ষমতায় এলে আর কাউকে ভোট দিতে দেবে না। আপনার ভোটটিও তাঁরাই দিয়ে দেবে।’

dilip-sova

দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকেই বীরভূমের তৃণমূল ্প্রার্থীকে কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি পোড়খাওয়া এই বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, ‘আমরা এমন কাউকে প্রার্থী করতে পারব না, যিনি ঠান্ডা গাড়ি থেকে নেমে  বক্তৃতা দিয়ে ফের গাড়িতে উঠে পড়বেন। মানুষের স্বার্থে প্রয়োজন কর্মঠ মানুষ। সেই কারণেই আমরা দুধকুমার মণ্ডলকে প্রার্থী করেছি।’ গতকালের তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিমের বিজেপিকে নিষিদ্ধ ঘোষণার দাবি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এসবের হিসেব ভোটের পরেই মিটবে।’  

[আরও পড়ুন:  প্রচারে শ্বশুরবাড়ির পাড়ায় আলুওয়ালিয়া, ঢুকলেন না তৃণমূল নেতা শ্যালকের বাড়িতে]

এদিন বকলমে কর্মীদের তিনি এমনটাও ইঙ্গিত দেন, যারা এবার রাজ্য থেকে জয়ী হবেন, মন্ত্রীপদ পাবেন তাঁরা। অর্থাৎ তাদের জেলার সাংসদ মন্ত্রিসভায় আসন পেতে পারেন, এমনই অশ্বাস দেন তিনি। তিনি বলেন, অমিত শাহ সকলের কাজের লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়েছেন, সেভাবেই কাজ করতে হবে। জয় আসবেই। দিলীপ ঘোষের এদিনের মন্তব্য থেকে অনেকটাই অক্সিজেন পেয়েছে বীরভূমের বিজেপি নেতৃত্ব, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।  

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement