৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: ভোটের পরেও অশান্তি অব্যাহত রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে। একই ছবি দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী থানার চড়বিদ্যা গ্রামে। অভিযোগ, বিজেপির সক্রিয় কর্মী হওয়ার কারণে ভোটের পরে ওই এলাকার এক ব্যক্তির বাড়িতে ভাঙচুর চালায় স্থানীয় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। মারধর করা হয়েছে ওই ব্যক্তিকেও। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ব্যক্তি স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

[আরও পড়ুন:  ভোটগ্রহণের দু’দিন পরেও উত্তপ্ত কাঁকিনাড়া, নৈহাটি লোকালে বোমাবাজি দুষ্কৃতীদের]

ভোটপর্বে রাজনৈতিক সংঘর্ষে বারবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে রাজ্যে। বিভিন্ন প্রান্তে বিরোধীদের আক্রমণের অভিযোগ উঠছিল শাসকদলের বিরুদ্ধে। কোথাও আবার আক্রমণের শিকার হয়েছে খোদ শাসকদলের কর্মীরাই। তবে ভোট মিটলেও পরিস্থিতি পালটায়নি। ভোট মেটার পরেও প্রকাশ্যে রাজনৈতিক সংঘর্ষ। জানা গিয়েছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী থানার চড়বিদ্যা গ্রামের বাসিন্দা বাবলু বরাবরই বিজেপি কর্মী হিসেবে এলাকায় পরিচিত। স্বাভাবিকভাবেই বিজেপির মিটিং-মিছিলে সক্রিয় ভূমিকায় দেখা যেত বাবলুকে। আর এতেই শাসকদলের ক্ষোভের মুখে পড়েন বাবুল। অভিযোগ, রবিবার ভোট মেটার পর সোমবার গভীর রাতে শাসকদল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা মদ্যপ অবস্থায় বাবলুর বাড়িতে চড়াও হয়। মদের বোতল ভাঙা অংশ দিয়ে মারধর করা হয় ওই ব্যক্তিকে। ভাঙচুর করা হয় তাঁর বাড়িতেও। পরিবারের সদস্যদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করা হয় বলে অভিযোগ। বেশ কিছুক্ষণ ওই ব্যক্তির বাড়িতে  তাণ্ডব চালানোর পর সেখানেই বাইক রেখে চম্পট দেয় অভিযুক্তরা।

vangchur-2

[আরও পড়ুন: পাশের হারে নজির গড়ল চলতি বছরের মাধ্যমিক, কলকাতাকে পিছনে ফেলল জেলার পড়ুয়ারা]

এরপর গুরুতর আহত অবস্থায় বাবলুকে উদ্ধার করে ক্যানিং হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই আক্রান্ত বিজেপি কর্মীর পরিবারের তরফে বাসন্তী থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্তদের বাইকগুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খোঁজে তদন্ত শুরু হয়েছে। তবে ভোট পরবর্তী পর্যায়ে এহেন ঘটনায় আতঙ্কিত স্থানীয়রা। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং