৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্ত্রী ও সন্তানকে খুনের পর আত্মঘাতী যুবক, চাঞ্চল্য খাতড়ায়

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: April 22, 2019 10:48 am|    Updated: April 22, 2019 10:50 am

An Images

দেবব্রত দাস, খাতড়া:  স্ত্রী ও শিশুপুত্রকে খুনের পর আত্মঘাতী যুবক। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার খাতড়ার শিমলাপাল থানা এলাকায়।  ইতিমধ্যেই দেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে শিমলাপাল থানার পুলিশ। তবে কী কারণে এই ঘটনা তা নিয়ে ধন্দে পুলিশ। মৃতদের পরিবার ও প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: সিউড়িতে আক্রান্ত তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি, কাঠগড়ায় বিজেপি]

সূত্রের খবর, বাঁকুড়ার শিমলাপাল থানার করাকানালি গ্রামের বাসিন্দা বরুণ ডাঙর। রবিবার রাতে স্ত্রী ও সন্তানের সঙ্গে ঘুমোতে যান ওই যুবক। জানা গিয়েছে, সকালে পরিবারের অন্য সদস্যরা দেখতে পান ঘরে মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন ওই যুবকের স্ত্রী মৌসুমী ডাঙর ও দম্পতির আড়াই বছরের সন্তান সূর্য। ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় বরুণের দেহ। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই খবর দেওয়া হয় শিমলাপাল থানায়। পুলিশ গিয়ে দেহ তিনটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, পারিবারিক অশান্তির জেরেই স্ত্রী ও সন্তানকে শ্বাসরোধ করে খুন করে ওই যুবক। এরপর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হন বরুন।

[আরও পড়ুন: রক্তদান থেকে চারাগাছ বিতরণ, গতানুগতিকতা ভেঙে সন্তানের জন্মদিন উদযাপন দম্পতির]

বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থলে যান খাতড়ার এসডিপিও বিবেক বর্মা। তিনি জানান, ‘কী কারণে এই ঘটনা সে বিষয়ে স্পষ্ট কোনও তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।’ গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলে এবিষয়ে তদন্ত করা হবে বলে জানান তিনি। পুলিশের তরফে জানান হয়েছে, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরেই গোটা বিষয়টি স্পষ্ট হবে। তাঁর পরেই শুরু হবে তদন্ত।

[আরও পড়ুন: পুলিশকে ‘নরকের কীট’ বলে ধমক, ফের বিতর্কে বাবুল সুপ্রিয়]

সোমবার সকালে মৌসুমীর শ্বশুরবাড়িতে হাজির হন বাপের বাড়ির সদস্যরা। বধূর উপর অত্যাচারের অভিযোগ তুলে মৃতার শ্বশুর অনিল ডাঙর, বৌদি সোমা ডাঙর-সহ একটি বাচ্চাকে বেধড়ক মারধর করেন তাঁরা। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁদের স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। সূত্রের খবর, মৃতার বাপের বাড়ি ও শ্বশুরবাড়ি উভয়ের তরফেই শিমলাপাল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement