BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রবল বৃষ্টিতে সেতু ভেঙে সোজা পাতালে পিকআপ ভ্যান, মালবাজারে মৃত দুই

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 28, 2020 11:11 am|    Updated: July 28, 2020 11:14 am

An Images

অরূপ বসাক, মালবাজার: উত্তরবঙ্গে প্রবল বৃষ্টি চলছে বেশ কয়েকদিন ধরে। আর তার জেরে মালবাজারের জুরন্তি সেতুর একাংশ ভেঙে বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটল ভোররাতে। সেতুর উপর দিয়ে যাওয়ার সময়ে তা আচমকা হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ায় একেবারে পাতালে গিয়ে পড়ল কলবোঝাই একটি পিকআপ ভ্যান। ঘটনাস্থলেই ভ্যানের দুই আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সেখান পৌঁছয় মালবাজার থানার পুলিশ উদ্ধারকাজে নেমেছে দমকল বাহিনী। জুরন্তি সেতুর একাংশ এভাবে ভেঙে যাওয়ায় আপাতত ডুয়ার্স-শিলিগুড়ি যোগাযোগ একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ অসম থেকে কলাভরতি একটি পিকআপ গাড়ি শিলিগুড়ির দিকে যাচ্ছিল। মালবাজার মহকুমার বাগ্রাকোটের এমইএসের কাছে জুরন্তি সেতুতে ওই পিকআপ গাড়িটি ওঠা মাত্র হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে সেতুর একাংশ। সেতু থেকে প্রায় ২০ ফুট নিচে পড়ে যায় গাড়িটি। খবর পেয়ে মালবাজার পুলিশ এবং দমকল কর্মিরা ঘটনা স্থলে এসে পিকআপ ভ্যান থেকে দু’জনের মৃতদেহ উদ্ধার করে। প্রচণ্ড বৃষ্টির কারণে সেতুর নিচের মাটি ধসে যাওয়ায় এই বিপত্তি বলে জানা গিয়েছে। উল্লেখ্য, গত কয়েক বছর আগেও জুরন্তি সেতুর ঠিক এই জায়গায় ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছিল শিলিগুড়ি-ডুয়ার্সের। ফের একই ঘটনা। সেতুটি তখন কীভাবে মেরামত হয়েছিল, সামগ্রীর মান কেমন ছিল, সেসব প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ইতিমধ্যে।

[আরও পড়ুন: একদিনে রাজ্যে করোনামুক্ত ২ হাজারেরও বেশি মানুষ, কমল সংক্রমিতের সংখ্যাও]

অন্যদিকে, রাতভোর বৃষ্টিতে উত্তরবঙ্গের পাহাড় এবং সমতলে সমস্ত নদীর জলস্তর হু হু করে বেড়ে চলেছে। মালবাজার মহকুমার বাগ্রাকোট গ্রাম পঞ্চায়েতের লিস নদীর জলে ধসে পড়ল নদীর উপর রেলসেতু, নিচের একদিকে মাটি এবং গার্ড ওয়াল। ফলে রেল লাইনের কিছুটা অংশ আপাতত ঝুলে রয়েছে। সকালে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন রেল দপ্তরের আধিকারিকরা। রেলসেতুটি মেরামত না হওয়া পর্যন্ত এই রুটের ট্রেন চলাচলও বন্ধ হয়ে গেল।

[আরও পড়ুন: প্রাথমিকের ক্লাস নিচ্ছেন ডেন্টিস্ট, কার্ডিওলজিস্ট, সাইকোলজিস্টরা, বাঁকুড়ায় বিপ্লব!]

স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য, রাতভর প্রচন্ড বৃষ্টি হয়েছে এই এলাকায়। সেই কারনে এই বিপত্তি। গ্রামের মানুষজনের আশঙ্কা, এই লিস নদীর জল চান্দা কম্পানি গ্রামে বা কৃষিখেতে ঢুকে গেলে বিপদ আরও বাড়বে। বর্তমানে বৃষ্টি হয়েই চলেছে। যার ফলে কাজ করতে বেগ পেতে হচ্ছে রেল দপ্তরকে। যেভাবে রেল লাইনে নিচের মাটি সরে লাইন ঝুলছে, তাতে মেরামতির জন্য দু, তিনদিন সময় লাগবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement