BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভিলেন জুতোর ফিতে, মুখ্যমন্ত্রীর পাশে হাঁটতে গিয়ে হোঁচট মহুয়ার

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 20, 2019 7:18 pm|    Updated: April 20, 2019 7:18 pm

An Images

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: মালদহের পর এবার কৃষ্ণনগর৷ দিনভর ভোটের প্রচারের পর বিকেল নামতেই রোড শো শুরু করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শনিবার বিকেল ৫টা ১০ নাগাদ কৃষ্ণনগরের ক্ষৌণিষ পার্ক থেকে শুরু হয় তাঁর রোড শো৷ কৃষ্ণনগর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী মহুয়া মৈত্র এবং অজস্র কর্মী, সমর্থকদের নিয়ে পদযাত্রায় নামলেন মমতা৷ প্রায় চার কিলোমিটার রাস্তা হাঁটলেন ৫০ মিনিটে৷ মুখ্যমন্ত্রীর রোড শো ঘিরে ভিড় উপচে পড়ছিল রাস্তার দু’ধারে৷

[ আরও পড়ুন: তৃতীয় দফার ভোটের আগে অপসারিত মালদহের পুলিশ সুপার অর্ণব ঘোষ]

দিন দুই আগে মালদহে প্রচার করতে গিয়ে পড়ন্ত বেলায় আচমকাই মুখ্যমন্ত্রী ইংরেজবাজার থেকে রোড শোয়ে নেমে পড়েছিলেন৷ সঙ্গে ছিলেন মালদহ উত্তরের তৃণমূল প্রার্থী মৌসম বেনজির নূর এবং মালদহ দক্ষিণের প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেন৷ দীর্ঘ কয়েক কিলোমিটার রাস্তায় জনসংযোগের মাধ্যমে এগিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীর পদযাত্রা৷ বেশ কয়েকবছর পর মালদহ শহরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রোড শো দেখতে সেদিনও রাস্তার পাশে ছিল ভিড়ে ঠাসা৷ একই ছবি দেখা গেল শনিবার, কৃষ্ণনগরে৷

শনিবার কৃষ্ণনগরের দলীয় প্রার্থী মহুয়া মৈত্র এবং রানাঘাটের রূপালী বিশ্বাসের হয়ে কালীগঞ্জ এবং বগুলায় প্রচার করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ এরপর ঠিক ৫টা ১০ নাগাদ নেমে পড়েন পদযাত্রায়৷ কৃষ্ণনগরের ক্ষৌণিষ পার্ক থেকে শুরু হয় পদযাত্রা৷ সঙ্গে প্রার্থী মহুয়া মৈত্র, মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস, বিধায়ক কল্লোল খাঁ-সহ জেলা নেতৃত্বের বহু নেতা, কর্মী৷ বউবাজার, ফোয়ারার মোড়, পোস্ট অফিস মোড় হয়ে জলঙ্গি নদীর ধার দিয়ে কদমতলা ঘাটে গিয়ে শেষ হয় পদযাত্রা৷ হাঁটার পথে রাস্তার পাশে জড়ো হওয়া মানুষজনের সঙ্গে নিজের স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে জনসংযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কখনও হাত নেড়ে, কখনও হাতজোড় করে সকলের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর হাঁটার গতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গিয়ে তরুণ প্রার্থী মহুয়া একবার পিছিয়েও পড়েন৷ সেসময় তাঁর জুতোর ফিতে খুলে যাওয়ায় সমস্যা হয়েছিল৷ মুহূর্তের মধ্যে তা সামলে নিয়ে ফের মুখ্যমন্ত্রীর পাশে হাঁটতে শুরু করেন মহুয়া৷

[আরও পড়ুন : কীর্তন থামিয়ে নির্বাচনী প্রচার, ক্ষোভের মুখে বিজেপি প্রার্থী আলুওয়ালিয়া]

কৃষ্ণনগর-সহ গোটা নদিয়া জেলায় রাজ্যের শাসকদলের কাজকর্ম নিয়ে মানুষ তেমন একটা সন্তুষ্ট ছিলেন না৷ অভিযোগও উঠছিল নানা স্তরে৷ জনসমর্থন পুনরুদ্ধারে এবার কৃষ্ণনগরে তৃণমূলকে বেশ বেগ পেতে হবে বলেও মনে করছিল রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷ এদিন মুখ্যমন্ত্রীর চার কিলোমিটার রোড শো সেসব কঠিন কাজ অনেকটাই সহজ করে দিল বলে আশ্বস্ত হচ্ছেন দলের কর্মী, সমর্থকরা৷ মুখ্যমন্ত্রীর এই কর্মসূচি তাঁদের মনোবল বাড়াবে বলেও মনে করছেন তাঁরা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement