BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কলকাতায় করোনার বলি মোট ১,৫০০, সংক্রমিতের নিরিখে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে রাজ্যের এই ৫ জেলা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: September 15, 2020 9:03 pm|    Updated: September 16, 2020 12:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একটা একটা করে দিন অতিবাহিত হচ্ছে, কিন্তু করোনার দাপট কোনও অংশে কমছে না। একদিকে ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষার প্রহর গুণছে দেশবাসী, অন্যদিকে তেমনই রোজ দেশের সার্বিক ছবি দেখে চিন্তার ভাঁজ গভীর হচ্ছে। ব্যতিক্রমী নয় বাংলাও। এখানেও প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে সংক্রমণ। পাল্লা দিয়ে চলেছে মৃত্যুও। যদিও সোমবারই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, গত কয়েক মাসে উল্লেখযোগ্যভাবে রাজ্যে কমেছে করোনায় মৃত্যুর হার। পরিসংখ্যান সে প্রমাণ দিচ্ছে ঠিকই, কিন্তু এরই মধ্যে শুধু কলকাতায় (Corona death case in Kolkata) মোট করোনার বলি দেড় হাজারের গণ্ডি স্পর্শ করল।

এদিনের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে করোনা (Coronavirus) আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ২২৭ জন। যার মধ্যে শুধু কলকাতায় আক্রান্ত ৪৮৭ জন। তবে তালিকার এদিনও শীর্ষে উত্তর ২৪ পরগনা। একদিনে সে জেলায় ৫১৬ জনের শরীরে থাবা বসিয়েছে মারণ ভাইরাস। এছাড়াও ২৪ ঘণ্টায় হুগলি (১৯৮), পশ্চিম মেদিনীপুর (২৪২), হাওড়া (১৩৪), দক্ষিণ ২৪ পরগনা (২০২) ও পূর্ব মেদিনীপুরের (১৩৭) সংক্রমিতের সংখ্যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। এর ফলেই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ২ লক্ষ ৯ হাজার ১৪৬। যদিও এর মধ্যে বর্তমানে অ্যাকটিভ কেস অনেকটাই কম। অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা ২৩ হাজার ৯৪২।

[আরও পড়ুন: ‘বিজেপি জয়ী হলে সেই এলাকায় উন্নয়ন করা হবে না’, নিদান অনুব্রতর]

সংক্রমণের পাশাপাশি এই মারণ ভাইরাস এখনও মানুষের প্রাণ কেড়ে চলেছে। স্বাস্থ্যদপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের। যার মধ্যে সর্বোচ্চ উত্তর ২৪ পরগনা। ১৫ জন প্রাণ হারিয়েছেন সেখানে। ফলে বাংলায় করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা ৪০৬২ জন। তবে এতকিছুর মধ্যেও স্বস্তি দিচ্ছে ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার হার। একদিনে করোনাকে জয় করে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৯১৯ জন। যদিও সংখ্যাটা গতকালের চেয়ে কম। বাংলায় এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লক্ষ ৮১ হাজার ১৪২ জন। সুস্থতার হার বেড়ে ৮৬.৬১ শতাংশ।

লকডাউন, সোশ্যাল ডিসটেন্সিংয়ের পাশাপাশি ট্রেসিং, ট্র্যাকিং ও টেস্টিংয়ের মাধ্যমে দ্রুত করোনা রোগীকে চিহ্নিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। যাতে দ্রুত আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়। তাই আগের তুলনায় অনেকটাই বেড়েছে টেস্টিংয়ের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ হাজার ২২৬টি স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে। রাজ্যে এখনও অবধি মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২৫ লক্ষ ৬২ হাজার ৮২১টি।

[আরও পড়ুন: ‘স্বপন দেবনাথ, অনুব্রত মণ্ডলরা বিকাশ দুবে হয়ে যাবেন’, হুঁশিয়ারি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement