Advertisement
Advertisement
দেবশ্রী চোধুরী

বাবুলের পর দেবশ্রী, বুলবুল বিধ্বস্ত গোসাবায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে ঘিরে বিক্ষোভ স্থানীয়দের

'গো ব্যাক' স্লোগানও দেওয়া হয় তাঁকে।

Debasree Chaudhuri the BJP leader faces protest at Gosaba
Published by: Sandipta Bhanja
  • Posted:November 15, 2019 12:53 pm
  • Updated:November 15, 2019 1:32 pm

দেবব্রত মণ্ডল, সন্দীপ চক্রবর্তী: বুধবারই ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। নামখানা থেকে ফ্রেজারগঞ্জ যাওয়ার পথে বাবুল সুপ্রিয়র গাড়ি আটকে বিক্ষোভ দেখিয়েছিল তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। এমনকী, কেন্দ্রীয় এই মন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তোলা হয়েছিল ‘গো ব্যাক’ স্লোগানও। বিজেপি নেতাকে কালো পতাকা প্রদর্শনও বাদ যায়নি। আজ শুক্রবার ফের সেই একইরকম ছবি ফুটে উঠল গোসাবায়। বাবুলের পর এবার বিজেপি নেত্রী দেবশ্রী চৌধুরিকে দেখে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দিল গোসাবাবাসী।

শুক্রবার গোসাবায় বিক্ষোভের মুখে পড়তে হল বিজেপি নেত্রী তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীকে। ভেঙে ফেলা হল বিজেপি নেত্রীর জন্য তৈরি মঞ্চও। এদিন লঞ্চে চড়ে গোসাবায় যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তবে গোসাবার ঘাটে নামার আগেই বিজেপি নেত্রীকে ঘিরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন এলাকার তৃণমূল সমর্থকরা। এমনকী, বিজেপি কর্মীকে মারধর করার অভিযোগও ওঠে তৃণমূল কর্মীদের উপর। গোটা ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। পুলিশের সঙ্গে  অন্যদিকে, ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়ে সাধারন মানুষও।

Advertisement

[আরও পড়ুন:  অভিনব উদ্যোগ মমতার, বুলবুল বিধ্বস্তদের নিত্যপ্রয়োজনে ‘ডিগনিটি কিট’ দিচ্ছে রাজ্য]

শুক্রবারই হেলিকপ্টারে করে বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করে দেখল কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং অর্থনীতি মন্ত্রকের সদস্যদের নিয়ে বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনের জন্য তৈরি হয়েছে একটি প্রতিনিধি দল। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে সেই প্রতিনিধি দল বসিরহাটের এসডিও অফিসে বৈঠক করেন জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে। আগামীকাস ফের বৈঠক করবেন কেনেদ্রীয় প্রতিনিধি দল।

Advertisement

গতকালই দুর্গতদের ‘ডিগনিটি কিট’ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুর্যোগের কবলে পড়া অভাবী মানুষগুলিকে যাতে নতুন করে শুরু করতে কোনও সমস্যার সম্মুখীন না হতে হয়, সেকথা ভেবেই এই বিশেষ কিট দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। অন্যদিকে বুধবারই শোনা গিয়েছিল, বুলবুলে বিধ্বস্ত এলাকাগুলির ছাত্রছাত্রীদের কথা মাথায় রেখে এক সপ্তাহের জন্য পিছল সরকারি স্কুলগুলির বার্ষিক পরীক্ষা। ডিসেম্বরেই বার্ষিক পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বছরের প্রায় শেষ পর্যায়ে এসে পরীক্ষার মুখোমুখি এমন ঘূর্ণীঝড়ে সব তছনছ হয়ে যাওয়াতেই পরীক্ষা পিছনোর সিন্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

[আরও পড়ুন:  বুলবুলের দাপট উপেক্ষা করে বিপর্যয় মোকাবিলা, ভরসা হ্যাম রেডিও]

 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ