BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা নাকি অন্য কিছু? পাঁশকুড়ার তৃণমূল কাউন্সিলরের মৃত্যুর কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 19, 2020 12:54 pm|    Updated: July 19, 2020 5:34 pm

An Images

সৈকত মাইতি, তমলুক: পাঁশকুড়ার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর মঞ্জুরি বিবির মৃত্যুর কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা। দিনকয়েক আগে জ্বর এসেছিল তাঁর। সঙ্গে ছিল শ্বাসকষ্ট। শনিবার রাতে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। এখনও করোনা (Coronavirus) রিপোর্ট আসেনি। ওই কাউন্সিলরের আদৌ করোনায় মৃত্যু হয়েছে কিনা, তা স্পষ্ট নয়। তবে স্থানীয়রা করোনা আতঙ্কে কাঁটা।

পরিবার সূত্রে খবর, সপ্তাহখানেক আগেই তিনি জ্বরে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এরপর চিকিৎসায় সাড়া দিয়ে কিছুটা সুস্থ হয়েও ওঠেন। ফের শনিবার সকাল থেকেই তিনি জ্বর অনুভব করেন। সেই সঙ্গে শুরু হয় শ্বাসকষ্ট। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই দিন সন্ধে আটটা নাগাদ তাঁকে পাঁশকুড়ার মেছোগ্রামের বড়মা করোনা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই রাত প্রায় দশটা নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়। তবে এখনও আসেনি করোনা রিপোর্ট। তাই আদৌ তাঁর মৃত্যু কারণ করোনা কিনা, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। 

[আরও পড়ুন: স্বপ্না বর্মনের বাড়িতে বনদপ্তরের অভিযান নিয়ে কড়া মুখ্যমন্ত্রী, পদক্ষেপকে স্বাগত বিজেপির]

বাহান্ন বছর বয়সি ওই তৃণমূল কাউন্সিলর মঞ্জুরি বিবি ছিলেন জেলা তৃণমূল সংখ্যালঘু সেলের সাধারণ সম্পাদক তথা রাজ্য মাইনোরিটি ফোরামের সদস্য জইদুল ইসলাম খানের স্ত্রী। ২০১৭ সালে পৌর নির্বাচনে পাঁশকুড়া পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত হয়ে তিনি কাউন্সিলর হন। তাঁর মৃত্যুতে রাজনৈতিক মহলে নেমেছে শোকের ছায়া।

তবে ইতিমধ্যে স্থানীয়দের মনে করোনা আতঙ্কও দানা বাঁধতে শুরু করেছে। অনেকেই মনে করছেন, করোনা আক্রান্ত হয়েই ওই কাউন্সিলরের মৃত্যু ঘটেছে। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে নিহত কাউন্সিলরের পরিবারের বাকি সদস্যদের পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: সৎকারের পর এল করোনা রিপোর্ট, সরকারি হাসপাতালের ‘উদাসীনতা’য় বাড়ছে সংক্রমণের আশঙ্কা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement