BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

চরমে দলীয় কোন্দল, ছ’বছরের জন্য সাসপেন্ড বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 14, 2020 9:49 pm|    Updated: July 14, 2020 9:49 pm

An Images

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগেই বিজেপির দলীয় কোন্দল চরমে। ইতিমধ্যেই বিজেপির প্রাক্তন জেলা সভাপতি ও বর্তমান জেলা সভাপতির রাজনৈতিক অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার লড়াইকে কেন্দ্র করে শ্রীরামপুর সাংগঠিনক জেলার বিজেপি কর্মীরা কার্যত দ্বিধাবিভক্ত। তারই মাঝে দলবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ তুলে বিজেপির শ্রীরামপুর সাংগঠনিক জেলার প্রাক্তন সভাপতি সুমন ঘোষকে ৬ বছরের জন্য সাসপেন্ড করার কথা ঘোষণা করা হল জেলা পার্টি অফিস থেকে।

[আরও পড়ুন: স্পেশ্যাল কুপনধারীদের হাতে পুজোর আগেই ডিজিটাল রেশন কার্ড, তথ্য নিচ্ছে খাদ্যদপ্তর]

মঙ্গলবার জেলা পার্টি অফিসে সাংবাদিকদের সামনে সাসপেন্ডের কথা ঘোষণা করেন বর্তমান শ্রীরামপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি শ্যামল বসু। এদিন শ্যামলবাবু জানান প্রাক্তন সভাপতি সুমন ঘোষ দীর্ঘদিন পার্টির সাথে যুক্ত না থেকে সমান্তরালভাবে বিভিন্ন ধরনের পার্টির কর্মসূচী পালন করে চলছিলেন। এই বিষয়ে তাকে শোকজ করার পর তার জবাবে পার্টি সন্তুষ্ট হতে পারে নি। শ্যামলবাবু জানান দীর্ঘদিন ধরে পার্টির মণ্ডল, জেলাকে না জানিয়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে পার্টির ব্যানার ও ঝান্ডা নিয়ে অনুষ্ঠান করছিলেন। তাই রাজ্যের নির্দেশে পার্টির এই দলবিরোধী কার্যকলাপের জন্য তাকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখন থেকে সুমন ঘোষ পার্টির কোনো কাজে যুক্ত থাকতে পারবেন না। এবং তারপরেও পার্টির কাউকে যদি তার সাথে কোনো কাজে যুক্ত থাকতে দেখা যায় তবে তার বিরুদ্ধেও দল ব্যবস্থা নেবে বলে সতর্ক করে দেওয়া হয়।

তবে এই বিষয়ে সুমন ঘোষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান জেলা সভাপতি শ্যামল বসুর কোনো এক্তিয়ার নেই তাকে দল থেকে সাসপেন্ড করার। একমাত্র পার্টির রাজ্য প্রেসিডেন্টই সাসপেন্ড করতে পারেন। পাশাপাশি যে কারণে তাকে শো কজ করা হয়েছিল তা নিয়ে বর্তমান সভাপতি সাংবাদিকদের কিছুই বলেন নি বলে দাবি করেন তিনি। শ্যামলবাবু তাকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন তিনি সহযোগিতা করছেন না বলেই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট অপারেট করতে পারছেন না। চিঠির জবাবে তিনি জানিয়েছেন এক জন প্রাক্তন জেলা সভাপতি হিসেবে এক্ষেত্রে তার কোনো ভূমিকা নেই। তবে এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ সুমনবাবু জানান তিনি এর জন্য আদালতে মানহানির মামলা করবেন। বিজেপির শ্রীরামপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি শ্যামল বসু এই বিষয়ে বলেন সুমন ঘোষ সহ মোট তিন জনের নামে পার্টির অ্যাকাউন্ট রয়েছে। কিন্তু পার্টির পক্ষ থেকে এই তিন জনই সিগনেটরি অথরিটি। সেক্ষেত্রে এরা সই না করে দিলে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকাও তোলা যাচ্ছে না।

[আরও পড়ুন: বেড়েই চলেছে সংক্রমণ, রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে ফের বাড়ল লকডাউনের মেয়াদ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement