Advertisement
Advertisement
শ্লীলতাহানি

বাগদায় কলেজ ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে ধৃত চিকিৎসক

ধৃতের নাম লিটন বিশ্বাস।

Young lady allegedly physically assulated in Bongaon.
Published by: Soumya Mukherjee
  • Posted:April 8, 2019 6:27 pm
  • Updated:May 21, 2020 6:47 am

নিজস্ব সংবাদদাতা, বনগাঁ: কলেজ ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হল এক চিকিৎসককে। রবিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে বাগদা থানার অন্তর্গত বাণেশ্বরপুর এলাকায় থাকা ধৃত চিকিৎসকের চেম্বারে। ধৃতের নাম লিটন বিশ্বাস। পেশায় হোমিওপ্যাথির ওই চিকিৎসক থাকে বনগাঁ থানার ভুলোট এলাকায়। সোমবার সকালে ধৃত লিটন বিশ্বাসকে বনগাঁ মহকুমা আদালতে পাঠিয়েছে বাগদা থানার পুলিশ।

[আরও পড়ুন-ধর্মনিরপেক্ষতাই ইউএসপি নুসরতের, ভিডিও বার্তায় তারকা প্রার্থীর প্রশংসায় মমতা]

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাগদা ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তরে চাকরি করার পাশাপাশি বাণেশ্বরপুর এলাকায় থাকা নিজের চেম্বারে সপ্তাহে দুদিন রোগী দেখত লিটন| রবিবার বিকেলে বাগদা চুয়াটিয়া এলাকার বাসিন্দা ও হেলেঞ্চা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী অভিযুক্তের চেম্বারে চিকিৎসা করাতে এসেছিল। এর আগেও বিভিন্ন শারীরিক সমস্যার জন্য ওই চিকিৎসকের চেম্বারে এসেছিল সে। রবিবার পায়ের একটি সমস্যার সমাধানের জন্য অভিযুক্তের চেম্বারে আসে ওই ছাত্রী। 

Advertisement

[আরও পড়ুন-‘৫৪৩ আসনেই বিজেপি ঝড়’, মনোনয়ন পেশের পর তৃণমূলকে বিঁধে মন্তব্য কল্যাণ চৌবের]

ওই যুবতীর অভিযোগ, লিটন তার পা দেখার পর আর কোথায় কোথায় সমস্যা আছে তা জানতে চায়। আর কোথাও সমস্যা নেই বলার পরেও জোর করতে থাকে। এরপরই তার শ্লীলতাহানি করে সে। ওই ঘটনার পর অভিযুক্তের চেম্বার থেকে বাইরে বেরিয়ে এসে কলেজের বন্ধুদের বিষয়টি জানায় ওই ছাত্রী। তারপর তাদের পরামর্শ শুনে অভিযোগ করে বাগদা থানায়। তদন্তে নেমে অভিযুক্ত লিটনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এপ্রসঙ্গে ডাক্তার বি আর আম্বেদকর কলেজের ভিপি গৌতম বিশ্বাস বলেন, “ওই চিকিৎসকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত।”

Advertisement

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ