BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মালদহের পুলিশকর্তাদের নামে ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে প্রতারণা! চলছে মূলচক্রীর খোঁজ

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 8, 2020 5:50 pm|    Updated: September 8, 2020 5:53 pm

An Images

বাবুল হক, মালদহ: এবার পুলিশ কর্তাদের নামে ফেসবুকে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে দুষ্কৃতীরা। ফেসবুকে ওই পুলিশ আধিকারিকদের নিজস্ব প্রোফাইল খোলা রয়েছে। সেই আসল ফেসবুক প্রোফাইলে ব‍্যবহৃত ব‍্যক্তিগত ছবি নিয়েই খোলা হয়েছে একাধিক ভুয়ো অ্যাকাউন্ট। সেই সব ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠানো হচ্ছে। তারপর বিভিন্ন ফেসবুক ইউজারদের কাছে সহানুভূতিশীল মেসেজ পাঠিয়ে কার্যত অর্থ আদায়ের চেষ্টা করছে দুষ্কৃতীরা। মালদহ (Maldah) জেলা পুলিশ সূত্রে মঙ্গলবার এই চাঞ্চল্যকর খবর মিলেছে। এ নিয়ে তড়িঘড়ি মালদহের সাইবার ক্রাইম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন পুলিশ কর্তারা। তদন্তে নেমেছে রাজ‍্য পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ।

ইতিমধ্যে একটি মোবাইল নম্বরের খোঁজ মিলেছে। সেই মোবাইল নম্বর ব‍্যবহার করে মালদহের এক পুলিশ কর্তার নামে ভুয়ো ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। সেই নম্বরের সূত্রে এগোচ্ছেন সাইবার ক্রাইম বিভাগের তদন্তকারী আধিকারিকরা। মাত্র দু’দিন আগেই মালদহ জেলা পুলিশের ডিএসপি (আইনশৃঙ্খলা) শুভতোষ সরকারের ব‍্যক্তিগত ছবি ও ঠিকানা-সহ যাবতীয় স্ট্যাটাস ব‍্যবহার করে ফেসবুকে একটি ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খোলা হয়। ফেসবুকে সেই নতুন অ্যাকাউন্টটি দেখতে পান ডিএসপির পরিচিতরা। তাঁকে ফোন করে জানান, তিনি আবার নতুন অ্যাকাউন্ট খুললেন কেন? অবাক হন পুলিশ কর্তা শুভতোষবাবু। তিনি বন্ধুদের জানিয়ে দেন, এটি ভুয়ো অ্যাকাউন্ট। কেউ তাঁর ছবি ও তথ্য ব‍্যবহার করে খুলেছে। এরপরই মালদহের ডিএসপি শুভতোষ সরকার অভিযোগ জানিয়েছেন সাইবার ক্রাইম থানায়।

[আরও পড়ুন: টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় শিলনোড়া দিয়ে থেঁতলে স্ত্রীকে খুন! নৃশংসতার সাক্ষী রায়গঞ্জ]

পুলিশের একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, শুধু মালদহের ডেপুটি পুলিশ সুপারের নামেই নয়, উত্তর দিনাজপুর জেলার পুলিশ সুপার সুমিত কুমার-সহ উত্তরবঙ্গের একাধিক পুলিশকর্তার নামে ফেসবুকে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। এর নেপথ্যে কোনও বড়সড় চক্র রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এভাবে পুলিশ কর্তাদের নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে দুষ্কৃতীরা তোলাবাজি করতে পারে বলে সাইবার ক্রাইম বিভাগের আধিকারিকরা মনে করছেন। তবে খুব শীঘ্রই চক্রটিকে ধরা সম্ভব হবে বলে আশাবাদী আধিকারিকরা। এই ঘটনায় জেলা পুলিশ মহলে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: দুই নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ! একজন অপমানে আত্মঘাতী, চাঞ্চল্য জলপাইগুড়িতে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement