১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রাজা দাস, বালুরঘাট: মদ পেটে পড়লে অনেকেরই হুঁশ থাকে না। আকণ্ঠ মদ্যপান করে স্ত্রী কিংবা বাড়ির লোককে মারধর, এমনকী, খুন করে ফেলার ঘটনা তো আকছারই ঘটে। কিন্তু তাই বলে মদ্যপ অবস্থায় মা-কে ধর্ষণ!!! অবিশ্বাস্য ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আর নির্যাতিতার শারীরিক পরীক্ষা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: পড়া না পারলেই মার, শিক্ষকদের ভয়ে আবাসিক স্কুল থেকে পালাল ৯ পড়ুয়া]

বয়স ২০ বছর, এখনও বিয়ে হয়নি। বালুরঘাট শহরে টোটো চালায় রাহুল রায় নামে এক যুবক। শহরে বাঁধবঙ্গি এলাকায় বাড়ি ওই যুবকের। পরিবারের লোকের দাবি, অল্প বয়সেই মদ্যপানে আসক্ত হয়ে পড়েছে রাহুল। দিনভর টোটো চালানোর পর প্রতি রাতেই আকণ্ঠ মদ গিলে বাড়ি ফেরে সে। রবিবার রাতেও অন্যথা হয়নি। অভিযোগ, রাতে যখন মদ্যপ অবস্থায় বাড়িতে ফেরে রাহুল, তখন ঘরে একাই ছিলেন তার মা। আচমকাই নিজের মায়ের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে রাহুল। ছেলের হাতেই ওই মহিলা ধর্ষিতা হন বলে অভিযোগ। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।  ঘটনার পর অভিযুক্ত রাহুল রায়কে ধরে ফেলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর দেওয়া হয় বালুরঘাট থানায়। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। মঙ্গলবার ওই যুবককে চোদ্দো দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

অভিযোগ যে মারাত্মক, তাতে সন্দেহ নেই। কিন্তু সত্যি কি নিজের মা-কে ধর্ষণ করেছে টোটো চালক রাহুল?  অভিযোগের ভিত্তিতে যেমন ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ, তেমনি তদন্তকারীরা নির্যাতিতার শারীরিক পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। তবে সে যাই হোক, ছেলের বিরুদ্ধে মাকে ধর্ষণের অভিযোগে শোরগোল পড়ে গিয়েছে বালুরঘাট শহরে।

[আরও পড়ুন: সরকারি প্রকল্পের ‘কাটমানি’ ফেরত চেয়ে হুমকি পোস্টার, চাঞ্চল্য আউশগ্রামে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং