BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Nagaland Firing: ‘BSF-এর গতিবিধির দিকে নজর রাখুন’, নাগাল্যান্ড প্রসঙ্গ টেনে পুলিশকে সতর্কবার্তা মমতার

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: December 7, 2021 5:19 pm|    Updated: December 7, 2021 10:36 pm

Nagaland Firing: CM Mamata Banerjee warns Police to be allert on BSF referring Nagaland's firing | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একেই কাজের সীমানা বেড়েছে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (BSF)। বাংলা, পাঞ্জাব, অসমের সীমান্তবর্তী এলাকার ৩৫ থেকে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত ভিতরে ঢুকে কাজ করার ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল (TMC) বিস্তর আপত্তি তুলেছে। এবার এ নিয়ে সীমান্তবর্তী জেলা দুই দিনাজপুর থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) পুলিশকে সতর্ক করে দিলেন। বললেন, ”বিএসএফ জওয়ানরা মাঝেমধ্যে গ্রামে ঢুকে পড়ে। দেখবেন, এভাবে যেন দুমদাম এলাকায় ঢুকে পড়তে না পারে। আইসিদের বলছি, খবর পেলে আপনারা ঘটনাস্থলে যান, নিজেরা গিয়ে দেখুন। প্রয়োজনে বিএসএফের ডিজির সঙ্গে কথা বলুন।” এরপরই তিনি নাগাল্যান্ডের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ”দেখেছেন তো নাগাল্যান্ডে কী ঘটে গেল?”

শনিবার নাগাল্যান্ডের (Nagaland) মন জেলার ওটিং গ্রামের সন্ত্রাসদমন অভিযান চলাকালীন সেনার প্যারা স্পেশ্যাল ফোর্সের (SF) গুলিতে ১৪ জন নিরীহ গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়। পালটা গ্রামবাসীদের প্রতিরোধের এক জওয়ানের প্রাণ গিয়েছে। এ নিয়ে তোলপাড় দেশ। সংসদে এর আঁচ পড়েছে। তৃণমূলও কেন্দ্রের উপর বিষয়টি নিয়ে চাপ বাড়ানোর কৌশল করেছে। ঘটনার দিনই টুইটে বিষয়টি নিয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর মঙ্গলবার উত্তর দিনাজপুরের (North Dinajpur) কর্ণজোড়ার প্রশাসনিক বৈঠক থেকে পুলিশকে সতর্ক করলেন তিনি। এদিন উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রশাসনিক বৈঠক ছিল। এর মধ্যে দক্ষিণ দিনাজপুর সীমান্তবর্তী জেলা। তাই সেখানে বিএসএফের সক্রিয়তা সম্পর্কে সচেতন থাকার বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: এবার শিল্পীদের জন্য নতুন প্রকল্প মুখ্যমন্ত্রীর, দেখালেন কর্মসংস্থানের নয়া দিশাও]

এদিন বৈঠক চলাকালীন জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার সময় বিএসএফ সম্পর্কে জেলা পুলিশের কাছে খোঁজখবর নেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ”ওদের কাজের পরিধি বাড়িয়েছে কেন্দ্র। ওরা গ্রামে গ্রামে ঢুকে পড়ছে। কিন্তু লোকাল পুলিশকে না জানিয়ে কিছু করা যাবে না। ওদের গতিবিধির দিকে নজর রাখুন। দেখলেন তো নাগাল্যান্ডে কী ঘটে গেল। এখানে শীতলকুচিতেও গুলি চালিয়ে ৩ জনকে মেরে দিল। এসব কাম্য নয়। পুলিশকে না জানিয়ে ওরা যেন কিছু না করে। আইসি-দের বলছি, আপনারা অনেক সময় ভাবেন, ওদের ছেড়ে দেওয়া হোক, কাজ করতে দেওয়া হোক। কিন্তু এটা করবেন না। অ্যালার্ট থাকবেন। বিডিও-দেরও বলছি, আপনারাও সতর্ক থাকুন।”

[আরও পড়ুন: স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের কাজে গতি আনতে পদক্ষেপ, টাস্ক ফোর্স গঠনের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর]

রাজনৈতিক মহলের মত, এই বার্তা দিয়ে আসলে এক ঢিলে দুই পাখি মারলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। একদিকে কয়েকটি রাজ্যে বিএসএফের এক্তিয়ারবৃ্দ্ধি, আরেকদিকে নাগাল্যান্ডের সেনাবাহিনীর স্পেশ্যাল ফোর্সের গুলিচালনা – দুই ইস্যুকে হাতিয়ার করেই পরোক্ষে কেন্দ্রবিরোধী সুর চড়ালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে