BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জেলাস্তরে বড়সড় রদবদল তৃণমূলের, পুরুলিয়ায় দলের জেলা কমিটিতে নেই কোনও বিধায়ক

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 10, 2020 8:09 pm|    Updated: September 10, 2020 8:30 pm

An Images

সুমিত বিশ্বাস ও ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: সাংগঠনিক স্তরে আমূল সংস্কারের পর জেলাস্তরেও এবার বড়সড় রদবদল ঘোষণা করল রাজ্যের শাসকদল (TMC)। আপাতত, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া এবং পশ্চিম বর্ধমানের জেলাস্তরের নেতাকর্মীদের মধ্যে কিছু কাঠামোগত পরিবর্তন করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, যে সব তৃণমূল স্তরের কর্মীদের সম্পর্কে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে বিরূপ প্রতিক্রিয়া আসছিল, তাঁদের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। নতুন দায়িত্বভার সামলানোর জন্য সেই সমস্ত নতুন মুখ এবং সৎকর্মীদের বেছে নেওয়া হয়েছে, যাঁরা জনগণের উন্নয়নের স্বার্থে কঠোর পরিশ্রম করেছেন। একঝলকে দেখে নেওয়া যাক, কোথায় কারা দায়িত্ব পেলেন –

  • সদ্য বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়া বিধায়ক তুষারকান্তি ভট্টাচার্যকে বাঁকুড়া জেলা কমিটির সহ-সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে।
  • বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দেওয়া শংকর নারায়ণ সিং দেও পুরুলিয়া জেলার জয়পুর ব্লকের সভাপতি হয়েছেন।
  • গেরুয়া শিবির থেকে তৃণমূলের আসা বিষ্ণুচরণ মাহাতোকে পুরুলিয়া জেলার রঘুনাথপুর শহরের টাউন সভাপতি পদে বসানো হয়েছে।
  • কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে আসা চঞ্চল মৈত্র এখন পুরুলিয়া জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক।

দু’মাস আগেই সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস সমস্ত অপ্রয়োজনীয় পদ সরিয়ে দিয়ে পরিকাঠামোগতভাবে বড়সড় রদবদল করেছিল। ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে একটি ২১ সদস্যের স্টেট ক্যাম্পেন কমিটি তৈরি করা হয়েছিল। এই কমিটির সদস্যেরা সাংগঠনিক এবং প্রচার সংক্রান্ত কাজকর্ম পরিচালনা করবে। তৃণমূল কংগ্রেসের পর যুব তৃণমূলেও এই রদবদল করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: দিলীপের পর কৈলাস, এবার পুলিশকর্মীদের জেলে ভরার হুঁশিয়ারি বিজেপি নেতার]

এদিকে, বিতর্কিত ১৫ জন ব্লক-শহর সভাপতিকে ছেঁটে ফেলে অবশেষে বহু প্রতীক্ষীত ব্লক-শহর সভাপতি ও পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটি প্রকাশ করল পুরুলিয়া (Purulia) জেলা তৃণমূল। বৃহস্পতিবার বিকালে শহর পুরুলিয়ার দুলমিতে জেলা তৃণমূল কার্যালয়ে দলের জেলা সভাপতির চেয়ারে বসার ৪৯ দিনের মাথায় এই কমিটি গঠন করে দিলেন গুরুপদ টুডু। সেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে থেকে বছরের পর বছর যখন এই জেলার একাধিক ব্লক, এমনকী একটি শহরে দলের সভাপতি মনোনীত করা যায়নি, সেখানে প্রায় দেড় মাসের মাথায় এই কমিটি প্রকাশ করে একেবারে শুরুতেই দলের সাধারণ কর্মীদের মন জয় করে নিলেন নতুন সভাপতি। তবে এর নেপথ্যে সভাধিপতির গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ যে রয়েছে এদিন তালিকা ঘোষণা করার সময় কার্যত তা বুঝিয়ে দেন জেলা সভাপতি। এবার ১৮৬ জনের দীর্ঘ জেলা কমিটি হলেও তাতে জায়গা হল না কোনও বিধায়কের। এর থেকেই স্পষ্ট তাঁদের এখন ‘পাখির চোখ’ শুধুই নিজেদের বিধানসভা কেন্দ্র।

[আরও পড়ুন: একুশের আগে চমক! বিজেপির রাজ্য কমিটিতে আসছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়]

১৮৬ জনের পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটিতে ১৮ জন জেলা সহ-সভাপতি, ৩৩ জন সাধারণ সম্পাদক, ৪৯ জন সম্পাদক ও কমিটিতে রয়েছেন ৮০ জন সদস্য। জেলা সভাপতি বলেন, “চেয়ারম্যান, তিন কো-অর্ডিনেটরের সুচিন্তিত মতামত ও রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে এই ব্লক-শহর সভাপতি ও পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটি গঠন হয়। এই কমিটিতে যেমন তরুণরা রয়েছেন, তেমনই দলের অভিজ্ঞদের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানো হয়েছে।” এদিন জেলার যুব কমিটিও জেলা কার্যালয় থেকে ঘোষণা করেন জেলা যুব সভাপতি সুশান্ত মাহাতো l

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement